গাজার রাফায় আগ্রাসনের পরিণতির হবে ভয়াবহ: মিসর

গাজা উপত্যকার সর্ব-দক্ষিণের শহর রাফাহতে স্থল আগ্রাসন চালানোর ব্যাপারে ইসরাইলের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে মিসর। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সামেহ শুকরি বলেন, রাফাহতে আগ্রাসন চালালে তার পরিণতি হবে ভয়াবহ এবং তা মাধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টাকে ভণ্ডুল করবে।

মঙ্গলবার জেনেভায় জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদ বা ইউএনএইচসিআর- এর ৫৫তম সম্মেলনে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

মিশরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব বর্তমানে ফিলিস্তিনি জনগণের বিরুদ্ধে জঘন্যতম অপরাধযজ্ঞ ও সহিংসতা প্রত্যক্ষ করছে। ৪৭ সদস্যবিশিষ্ট ইউএনএইচসিআর- এর কোনো সদস্যদেশ গাজায় ইসরাইলি আগ্রাসন প্রতিহত করার ব্যবস্থা না নেয়ায় তিনি এসব দেশের সমালোচনা করেন।

হামাসকে পুরোপুরি ধ্বংস করে গাজা থেকে ইসরাইলি পণবন্দিদের জীবিত উদ্ধার করে নেয়ার ঘোষণা দিয়ে গাজায় স্থল অভিযান শুরু করেছিলেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। গত প্রায় পাঁচ মাস গাজার উত্তর ও মধ্যাঞ্চল তন্ন তন্ন করেও পন্দবন্দিদের দেখা পায়নি তেল আবিব।

এদিকে উত্তর ও মধ্য গাজার লাখ লাখ অধিবাসী ইসরাইলি হামলা থেকে বাঁচতে মিসরের সীমান্ত সংলগ্ন রাফাহ শহরে আশ্রয় নিয়েছে। এ অবস্থায় ওই শহরে স্থল আগ্রাসন চালানোর ব্যাপারে তেল আবিবকে সতর্ক করে দিয়ে আন্তর্জাতিক সমাজ। আর রাফাহতে হামলা হলে সীমান্ত পেরিয়ে হাজার হাজার মানুষ মিসরে চলে যেতে পারে বলে কায়রো উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। পার্সটুডে

অর্থসূচক/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.