এফবিসিসিআই ও বিবিএস’র মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন দি ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) কে তথ্য-উপাত্ত দিয়ে সহযোগিতা করবে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস)। যা বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও নতুন বিনিয়োগের জন্য কার্যকর পরিকল্পনা এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

একই ভাবে, নির্ভরযোগ্য এবং হালনাগাদকৃত পরিসংখ্যান তৈরিতে বিবিএসকে শিল্প ও ব্যবসা-বাণিজ্য সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত্ব সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে সহযোগিতা করবে এফবিসিসিআই। মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) বিকেলে এফবিসিসিআই কার্যালয়ে এই বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে এফবিসিসিআই এবং বিবিএস।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো: জসিম উদ্দিন এবং বিবিএসের মহাপরিচালক মো: মতিয়ার রহমান নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এই সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

এ সময় এফবিসিসিআই সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন, “এলডিসি গ্রাজুয়েশন পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা, এসডিজি অর্জন এবং ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতিতে উন্নিত হতে গেলে জরুরী একটি উপাদান হলো হালনাগাদকৃত তথ্য ও পরিসংখ্যান। অথচ দেশে প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত সহজলভ্য নয়। ফলে বাজারে নতুন কোন শিল্প পণ্য আনার আগে সঠিকভাবে বাজার যাচাই বাছাই করাও সম্ভব হয় না। নতুন বিনিয়োগ বা ব্যবসা সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণেও বেগ পেতে হয় উদ্যোক্তাদের।”

দেশে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণ করতে হলে গতানুগতিক অনুশীলন থেকে বেড়িয়ে আসতে হবে। নির্ভরযোগ্য ও হালনাগাদকৃত তথ্যের সরবরাহ নিশ্চিত করতে না পারলে নতুন উদ্যোক্তা এবং বিদেশী বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করা যাবে না বলেও মন্তব্য করেন এফবিসিসিআই সভাপতি।

বর্তমান প্রেক্ষাপটে তথ্য প্রবাহের গুরুত্ব বিবেচনায় বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো কে নির্ভুল হালনাগাদকৃত তথ্য সংগ্রহ, বিশ্লেষণ এবং সরবরাহের সক্ষমতা আরও উন্নত করার আহ্বান জানান মোঃ জসিম উদ্দিন। এই সমঝোতা স্মারাক স্বাক্ষরের মাধ্যমে দেশের বেসরকারি খাত উপকৃত হবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো’র মহাপরিচালক মো: মতিয়ার রহমান জানান, এফবিসিসিআই বেসরকারি খাতের প্রথম কোনও প্রতিষ্ঠান যারা তথ্য আদান-প্রদানের জন্য পরিসংখ্যান ব্যুরো’র সাথে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করলো। এই উদ্যোগের মাধ্যমে বিবিএস’র তথ্য ভান্ডার আরও সমৃদ্ধ হবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন তিনি।

মো: মতিয়ার রহমান বলেন, “বিবিএস কে তথ্য সরবরাহ করে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। কারন বিবিএস সরাসরি কোনও ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের তথ্য প্রকাশ করে না। বরং সেসব তথ্য বিশ্লেষণ করে সূচক আকারে তা প্রকাশ করা হয়।” এসময় সঠিক তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণে বেসরকারি খাতের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইর সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, সহ-সভাপতি এম এ মোমেন, মো: আমিন হেলালী, পরিচালকবৃন্দ, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব অ্যাম্বাসেডর মসয়ূদ মান্নান, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ফারুক আহম্মেদ প্রমুখ।

 

অর্থসূচক/ এইচএআই

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.