লুহানস্ক দখলের দাবি রাশিয়ার

ইউক্রেনের পুর্বাঞ্চলের লুহানস্ক অঞ্চল দখলে নিয়েছে বলে দাবি করেছে রাশিয়া৷ দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী সেরজেই সোইগু প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে লুহানস্ক দখলের খবর জানিয়েছেন৷ রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তাসংস্থা ইন্টারফ্যাক্স থেকে এ খবর জানানো হয়৷

প্রতিরক্ষামন্ত্রী অবশ্য লুহানস্ক দখলকে বর্নণা করেছেন যে, এ অঞ্চলটিকে কিয়েভের অর্থাৎ ইউক্রেনের শাসন থেকে মুক্ত করা হয়েছে৷ লুহানস্কের ইসেচানস্ক শহরের দখলের পর এমন ঘোষণা দেয় রাশিয়া৷

তবে ইউক্রেন অবশ্য রাশিয়ার এ দাবির সতত্যা নিশ্চিত করেনি৷ গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই ইসিচানস্কে নিজেদের অবস্থার ধরে রাখার জোরালো চেষ্টা করে যাচ্ছিল ইউক্রেনীয় সেনারা৷ ইউক্রেনের পুর্বাঞ্চলে রাশিয়ার সীমান্তে অবস্থিত লুহানস্ক৷ ইউক্রেনে হামলা চালানোর কয়েক সপ্তাহ পর দেশটির রাজধানী কিয়েভ দখলের চেষ্টা ব্যর্থ হলে লুহানস্ক ও দনেৎস্ক দখলের চেষ্টা চালায় রাশিয়ার সেনারা৷

রাশিয়ান সেনাদের সঙ্গে মিলে এ অঞ্চলের বিদ্রোহীরাও ইউক্রেনের সেনাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে৷ বিদ্রোহীরা অবশ্য ২০১৪ সালে রাশিয়ার হামলার পর থেকেই এ অঞ্চলে সরব ছিল৷

রোববার দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানান, রাশিয়ার সেনা ও তাদের মিত্ররা ইসিচানস্ক শহরের পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে৷

তবে যুক্তরাষ্ট্রের ইনস্টিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব ওয়ার-এর বিশ্লেষকরা এক বিবৃতিতে জানায়, সম্ভবত ইসিচানস্ক শহর থেকে ইউক্রেনের সেনাদের উদ্দেশ্যমূলকভাবে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে৷ এর পরে রাশিয়ান সেনারা শহরটির দখল নেয়৷

রাশিয়ান সেনারা যে লুহানস্ককে ঘিরে নিজেদের অবস্থান শক্তিশালী করছে সে বিষয়টি আগেই টের পাওয়া গিয়েছিল৷ অঞ্চলটি পুরোপুরি দখলের বিষয়ে রাশিয়ার ঘোষণা আসার আগেই, লোহানস্কের গভর্নর সেরহি গিদাই টেলিগ্রামে দেওয়া এক বার্তায় জানান, ‘লুহানস্ককে ঘিরে রাশিয়ান সেনারা তাদের অবস্থান শক্তিশালী করছে৷ তারা নিষ্ঠুরভাবে শহরটিতে আক্রমণ করছে৷’

এদিকে যুদ্ধে আক্রান্ত ইউক্রেনের পুনর্গঠনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি৷

রোববার দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় জেলেনস্কি বলেন, দখলদাররা যা ধ্বংস করেছে তা পুনর্গঠনই নয়, ইউক্রেনের মানুষের জন্য নতুন করে সবকিছু করতে হবে৷ আর এর মানে হলো এই মুহূর্তে ইউক্রেনে মোটা অংকের বিনিয়োগ প্রয়োজন৷

উল্লেখ্য, ইউক্রেনের পুনর্গঠন নিয়ে আলোচনা করতে সোমবার সুইজারল্যান্ডে দুইদিনের এক আলোচনায় বসছেন পশ্চিমাদেশগুলোসহ বিশ্বের কয়েক ডজন দেশের নেতারা৷ সূত্র: ডিডাব্লিউ, রয়টার্স, এপি, এফপি, ডিপিএ

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...