গ্রামীণে যতটা পতন, রবিতে ততটা উত্থান

চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের শেষ কার্যদিবসে সূচকের সামান্য উত্থানের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে পুঁজিবাজারের লেনদেন। আজ বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ২৬ দশমিক ৪৭ দশমিক বেড়েছে।

এ দিন ডিএসইএক্স পরিবর্তনে তালিকাভুক্ত ২ মোবাইল ফোন কোম্পানির অদ্ভুত প্রভাব দেখা গেছে। সূচক পরিবর্তনে কোম্পানি দুটির অবদান ছিল সম্পূর্ণ বিপরীত এবং সমপরিমান। সবচেয়ে বড় মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোনের কারণে ডিএসইএক্স যতটা কমেছে, ততটাই বেড়েছে রবির অবদানে।

আজ ডিএসইতে গ্রামীণফোনের শেয়ারের দাম ২ শতাংশ বা ৬ টাকা। এর প্রভাবে ডিএসইএক্স ১১ দশমিক ৪৪ পয়েন্ট কমেছে। অন্যদিকে ডিএসইতে রবি আজিয়াটার শেয়ারের দাম ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ বা ১ টাকা ৫০ পয়সা বেড়েছে। এতে সূচক বেড়েছে ১১ দশমিক ০৯ পয়েন্ট।

আগেরদিন গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে মানসম্পন্ন সেবা দিতে ব্যর্থ হওয়ার অভিযোগে নতুন সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কমিশন (বিটিআরসি)। এর প্রভাবে আজ ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে কোম্পানিটির শেয়ারটির দর ৬ টাকা বা ২ শতাংশ কমেছে। কোম্পানিটির সর্বশেষ শেয়ার লেনদেন হয় ২৯৪ টাকা ১০ পয়সা দরে।

এদিন রবি অজিয়াটা লিমিটেডের শেয়ারের দর বেড়েছে ১ টাকা ৫০ পয়সা বা ৫.২৪ শতাংশ। এদিন শেয়ারটি সর্বশেষ ৩০ টাকা ১০ পয়সা দরে লেনদেন হয়।

বিশ্লেষকদের মতে, গ্রামীণফোনের সিম বিক্রি বন্ধ হবার ফলে এর ব্যবসা সম্প্রসারণ ব্যাহত হবে। এই আশংকা থেকে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম কমেছে। অন্যদিকে গ্রামীণফোনের সিম বিক্রি বন্ধ থাকলে রবিসহ অন্য মোবাইল অপারেটরগুলোর সিম বিক্রির সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। এতে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়েছে রবি অজিয়াটা লিমিটেডের শেয়ারের প্রতি। এতে বেড়েছে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম।

অর্থসূচক

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...