পুরোদমে চলছে জাতীয় ঈদগাহ মাঠের প্রস্তুতি

করোনা মহামারিতে গত দুই বছর জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে কোনো ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়নি। এবার সংক্রমণ পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। ফলে জাতীয় ঈদগাহে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ লক্ষ্যে পুরোদমে চলছে মাঠ প্রস্তুতের কাজ।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) বিকেলে জাতীয় ঈদগাহ ময়দান ঘুরে দেখা গেছে, চারদিকে বাঁশ দিয়ে প্যান্ডেল করার কাজ শেষ। চলছে বাঁশের কাঠামোর ওপর সামিয়ানা টাঙানোর কাজ। মাঠের ভেতরে একাধিক দর্জি সামিয়ানা সেলাইয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে। মাইক ও বৈদ্যুতিক তার বসানোর কাজও প্রায় শেষ দিকে। সবমিলিয়ে ঈদগাহ মাঠজুড়ে জোরেশোরে কাজ করছেন শ্রমিকরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও ফাঁকে ফাঁকে দেখে যাচ্চেন।

এবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ঈদগাহ মাঠ প্রস্তুতে টেন্ডার পেয়েছে ‘পিয়ারো সরদার অ্যান্ড সন্স’। এ প্রতিষ্ঠানের মালিক মোজাম্মেল হক।

মোজাম্মেল হক বলেন, ‘প্যান্ডেল নির্মাণের কাজ ৯০ ভাগ শেষ। এখন শুধু বাকি লাইটিং ও মাটিতে ত্রিপল বিছানোর কাজ। এরপর তার ওপর কাপড় বিছিয়ে দেওয়া হবে। আজ –কালকের মধ্যে লাইটিংয়ের কাজ শেষ হয়ে যাবে। শনিবার ত্রিপল ও কাপড় বিছানোর কাজ করবো।’

মাঠের আইনশৃঙ্খলা ও সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়ে জানতে চাইলে রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার সাজ্জাদুর রহমান বলেন, ‘ঈদ জামাত ঘিরে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। মাঠে কাজ শুরুর পর থেকে পুলিশ টহল দিচ্ছে। মাঠ প্রস্তুতের পর ঈদ জামাত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কয়েক স্তরে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।’

জাতীয় ঈদগাহের নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার সাংবাদিকদের বিস্তারিত জানাবেন বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

এদিকে, আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে জাতীয় ঈদগাহে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। তবে আবহাওয়া প্রতিকূল থাকলে ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৯টায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে অনুষ্ঠিত হবে। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ২ বা ৩ মে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।

অর্থসূচক/এইচডি/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...