ভিয়েতনামে করোনার ‘হাইব্রিড’ ধরন শনাক্ত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

0
168

ভিয়েতনামে নতুন এক ধরনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘হাইব্রিড’ কোভিড। কর্মকর্তারা বলছেন, করোনার নতুন এই ধরনটি মূলত ভারত এবং যুক্তরাজ্যের ধরনের সংমিশ্রণ। করোনার নতুন এই ধরনটি আগের সবগুলোর চেয়ে বেশি বিপজ্জনক এবং এটি দ্রুত বাতাসের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

শনিবার (২৯ মে) দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী নগুয়েন থানহ লং বলেন, নতুন শনাক্ত ধরনটির জিনোম সিকোয়েন্স করে দেখা গেছে, এটি ভারত ও যুক্তরাজ্যে শনাক্ত হওয়া ধরন দুটির মিশ্রণ। আরও সুনির্দিষ্টভাবে বলতে গেলে এটি ভারতে প্রথম শনাক্ত ধরনের বিবর্তন, যার উৎপত্তি মূলত যুক্তরাজ্যের ধরনটি থেকে। এ বিষয়ে ভিয়েতনামের পক্ষ থেকে দ্রুতই বিশ্বকে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। এমন সময় এ ঘোষণা এলো যখন ভারতীয় ধরন নিয়ে বিশ্বে উদ্বেগ রয়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হয়। পরিবর্তিত হয়ে নিজের নতুন নতুন ধরন তৈরি করে। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে করোনা শনাক্ত হওয়ার পর এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসের হাজারো মিউটেশন চিহ্নিত করা হয়েছে।

ভিয়েতনামে নতুন শনাক্ত হওয়া রোগীদের মধ্যে পরীক্ষা চালিয়ে করোনার এ ধরন পাওয়া গেছে বলে জানান নগুয়েন। তিনি বলেন, নতুন শনাক্ত ধরনের জেনেটিক কোড শিগগির প্রকাশ করা হবে।

ভারতে শনাক্ত করোনার নতুন ধরনটি ‘বি.১.৬১৭.২’ নামে পরিচিত। গত অক্টোবর মাসে এ ধরন শনাক্ত হয়। আর যুক্তরাজ্যে শনাক্ত করোনার নতুন ধরনটি ‘বি.১.১.৭’ নামে পরিচিত। যুক্তরাজ্যের চেয়ে করোনার ভারতীয় ধরনটি বেশি সংক্রামক বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

ভারতে করোনার সংক্রমণের ‘বিস্ফোরণের’ জন্য নতুন ধরনকে অনেকাংশে দায়ী করা হয়। করোনার ভারতীয় ধরনকে ‘উদ্বেগজনক’ হিসেবে চিহ্নিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

ভিয়েতনাম গত বছরের বেশিরভাগ সময় সফলভাবে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করতে পারলেও এখন সেখানে এ ভাইরাসের সংক্রমণ দ্রুত ছড়াচ্ছে। গত এপ্রিলের শেষের দিকে দেশটির ৩১টি শহর ও প্রদেশে প্রায় তিন হাজার ৬০০ মানুষ সংক্রমিত হয়েছে, যা দেশের মোট আক্রান্তের অর্ধেকেরও বেশি। এর আগে ভিয়েতনামের প্রশাসন আরও সাতটি ধরন শনাক্ত করার তথ্য জানিয়েছিল, যার মধ্যে যুক্তরাজ্য এবং ভারতীয় ধরনটিও ছিল।

নগুয়েন আরও জানান, করোনা ভাইরাসের নতুন ধরনটি পরীক্ষা করে দেখা গেছে যে এটা আগের জানা ধরনগুলোর চেয়ে আরও বেশি সংক্রামক এবং ভাইরাসটি খুব দ্রুত নিজের প্রতিরূপ জন্ম দিতে পারে। এখন পর্যন্ত সরকারি হিসাবে ৯ কোটি ৭০ লাখ জনসংখ্যার ভিয়েতনামের ছয় হাজার ৩৬৯ জন কভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছে এবং মারা গেছে ৪৭ জন।

সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স।

অর্থসূচক/কেএসআর