কানাডাকে হারিয়ে ফাইনালে আর্জেন্টিনা

উজ্জীবিত কানাডাকে উড়িয়ে দিয়ে চলতি কোপা আমেরিকার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে তিনবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। যুক্তরাষ্ট্রের মেট লাইফ স্টেডিয়ামে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে কানাডাকে ২-০ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টিনা। দলকে ফাইনালে তোলার পথে গোল করেছেন মেসি ও আলভারেজ।

এদিকে আর্জেন্টিনার কোনও পরীক্ষা নিতে পারেনি কানাডা। গ্রুপ পর্বের মতো সেমিফাইনালের মঞ্চেও দলটি আর্জেন্টিনার জন্য কোনও ত্রাস সৃষ্টি করতে পারেনি। নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে ৫১ভাগ সময় বল দখলে রেখে ১১ বার আক্রমণে যায় আর্জেন্টিনা। বিপরীতে ৪৯ ভাগ সময় বল পায়ে রাখা কানাডার আক্রমণ ৯টি।

ইতিহাস গড়ার স্বপ্ন নিয়ে নামা কানাডা ম্যাচের শুরুতেই পরপর দুটি সুযোগ পেয়ে যায়। কিন্তু দুটিই হারায় কানাডিয়ানরা। শুরুর ১০ মিনিটে আর্জেন্টিনার চেয়ে বরং দাপট দেখিয়েছে কানাডাই। প্রথম আক্রমণটাও আসে কানাডার পক্ষ থেকে। চতুর্থ মিনিটে প্রথম সুযোগ হাতছাড়া করে তারা। সপ্তম মিনিটে আরেকবার আক্রমণে কানাডা। এবারও আর্জেন্টিনার ডি বক্সের বামপাশ থেকে ভুল শটে সুযোগ হারায় কানাডিয়ানরা। পাল্টা আক্রমণে ১২তম মিনিটে প্রথম সুযোগা সে আর্জেন্টিনার সামনে। মাঝমাঠ থেকে বল নিয়ে আক্রমণে যান ডি মারিয়া। প্রতিপক্ষের ডি বক্সের ডানপাশে গিয়ে তিনি বল বাড়ান লিওনেল মেসিকে। কিন্তু আর্জেন্টাইন অধিনায়কের বা পায়ের জোরালো শট গোলপোস্টের পাশ ঘেঁষে চলে যায় বাইরে।

এই হতাশা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ম্যাচের ২২তম মিনিটেই দারুণ গোলে আর্জেন্টিনাকে লিড এনে দেন আলভারেজ। মাঝমাঠে বল দখলে নিয়ে ডি পল খুঁজে নেন আলভারেজকে। সুযোগ হাতছাড়া করেননি ম্যানসিটি তারকা। দুজনকে কাটিয়ে দারুণ শটে চলতি কোপা আমেরিকায় নিজের প্রথম গোলটি করেন আলভারেজ। এগিয়ে যাওয়ার পর আক্রমণে ধার বাড়ায় আর্জেন্টিনা। তবে প্রথমার্ধের শেষ দিকে দুটি সহজ সুযোগ মিস করেন মেসি। প্রথমে ৪৩তম মিনিটে সতীর্থের বানিয়ে দেওয়া সুযোগে পা ছুঁইয়ে মেসি পারেননি ঠিকানায় পাঠাতে। তার নেওয়া শট গোলবারের বাম পাশ ঘেঁষে যায়। কয়েক মিনিট বাদে ডি মারিয়ার পাস থেকে আবারও ব্যর্থ শট নেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। উল্টো প্রথমার্ধের ইনজুরি সময়ে কানাডার কাছে গোল খেতে বসেছিল আর্জেন্টাইনরা। এমি মার্টিনেজের পায়ের জাদুতে কোনোরকম রক্ষা মেলে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের।

দ্বিতীয়ার্ধে দ্বিতীয় গোল পায় আলবিসেলেস্তেরা। ম্যাচের ৫১ মিনিটে গোল করেন লিওনেল মেসি। তাকে গোল করান এনজো ফার্নান্দেজ। আর্জেন্টিনার তোলা আক্রমণ কানাডার বক্স থেকে ফিরে বাইরে থাকা এনেজোর কাছে আসে। জোরের ওপর ভলি নেন চেলসিতে খেলা তরুণ এই মিডফিল্ডার। মেসি ওই শটে আলতো করে পা ছুঁইয়ে জালে পাঠিয়ে দেন। এবারের কোপা আমেরিকায় মেসির এটি প্রথম গোল। এছাড়া আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ১০৯ গোল পেয়েছেন তিনি। কোপা আমেরিকায় এটি তার ১৪তম গোল। গোল খরার কাটিয়ে দারুণ এক রেকর্ডও গড়েছেন লিও। ২০০৭ সাল থেকে অংশ নেওয়া কোপা আমেরিকায় ছয় আসরেই গোল পেয়েছেন তিনি।

দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আগামীকাল বৃহস্পতিবার লড়বে উরুগুয়ে ও কলাম্বিয়া। ওই ম্যাচের জয়ী দলের বিপক্ষে আগামী ১৫ জুলাই শিরোপা যুদ্ধে নামবে আর্জেন্টিনা। গত ১০ বছরে এই নিয়ে ষষ্ঠবারে কোনো মেজর টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠল আলবিসেলেস্তেরা। লাতিন আমেরিকান শ্রেষ্ঠত্বের টুর্নামেন্টে শিরোপা ধরে রাখার মিশনে আর স্রেফ এক ম্যাচ দূরে লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।

অর্থসূচক/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.