ব্রাজিলকে বিদায় করে সেমিতে উরুগুয়ে

অতীত পরিসংখ্যানে ব্রাজিল এগিয়ে থাকলেও সাম্প্রতিক ফর্মে ফেবারিট হিসেবেই মাঠে নেমেছিল রেকর্ড ১৫ বারের চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়ে। তবে, মাঠের লড়াইয়ে ব্রাজিল-উরুগুয়ের কেউই পারেনি প্রতিপক্ষ রক্ষণের পরীক্ষা নিতে। যার ফলে কেউই পায়নি গোলের দেখা। কিন্তু পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা নির্ধারিত সময়ে উরুগুয়েকে আটকে রাখতে পারলেও টাইব্রেকার ভাগ্যে আর পেরে উঠেনি।

রবিবার (৭ জুলাই) লাস ভেগাসের অ্যালিজেন্ট স্টেডিয়াম সেমিতে ওঠার লড়াইয়ে ভিনিসিয়াসের জায়গায় তরুণ এদ্রিকেকে নিয়ে শুরুর একাদশ সাজায় ব্রাজিল। ম্যাচের ১২তম মিনিটে গুইমারেজকে ফাউলের সুবাদে ফ্রি-কিক পায় ব্রাজিল। তবে, বারের অনেক ওপর থেকে মেরে দেন রাফিনিয়া। অবশ্য গ্রুপপর্বে কলম্বিয়ার বিপক্ষে একই পজিশন থেকে দলকে এগিয়ে নিয়েছিলেন তিনি।

১৭তম মিনিটে কর্ণার থেকে নুনিজের হেড ঠেকিয়ে দলকে রক্ষা করেন দানিলো। ২২তম মিনিটে আরও একটি ফ্রি-কিক পায়। তবে, এবারও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি সেলেসাওরা। ২৭তম মিনিটে একক প্রচেষ্টায় ডি-বক্সে ঢুকে যান এন্ড্রিক। পাস বাড়িয়ে দিলেও সেখানে ছিল না কোনো ব্রাজিলিয়ান। রাফিনিয়া দৌড়ে গেলেও উরুগুয়ের রক্ষণভাগের দৃঢ়তায় সেই প্রচেষ্টা সফল হয়নি।

৩৪তম মিনিটে দারুণ এক আক্রমণ করে ব্রাজিল। প্রতি আক্রমণ থেকে এগিয়ে গোলরক্ষককে একা পেয়েও বল জালে জড়াতে পারেননি রাফিনিয়া। এমন সহজ সুযোগ হাতছাড়া হওয়ায় ফের হতাশ হতে হয় সমর্থকদের। ৩৭তম মিনিটে আরও একটি ফ্রি-কিক পায় ব্রাজিল। এবার রাফিনিয়ার পরিবর্তে রদ্রিগো শট নেন। তবে, তিনিও বল জালে জড়াতে পারেননি। এরপর যোগ করা সময়ে ফের দারুণ সুযোগ পায় ব্রাজিল। এবার এন্ড্রিকে সুযোগ হাতছাড়া করায় হতাশ হতে হয় সেলেসাওদের।

৪৭তম মিনিটে ভালো সুযোগ পেয়েছিল উরুগুয়ে। ফেডরিকো ভালবার্দের দূরপাল্লার শট সহজেই প্রতিহত করেন ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার। এরপর ৫২তম মিনিটে দুর্দান্ত এক আক্রমণ করে উরুগুয়ে। ডি-বক্সে ঢুকে বাঁ পায়ে শট করেন ডারউইন নুনেজ। তবে, দানিলোর গায়ে লেগে তা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৫৬তম মিনিটে আরাউহো ডি-বক্সের বেশ খানিকটা দূর থেকে শট করলেও তা লক্ষ্যে ছিল না। ৬২তম মিনিটে ভালবার্দের দূরপাল্লার আরেকটি শট বারের ওপর দিয়ে চলে গেলে হতাশ হতে হয় উরুগুয়ের সমর্থকদের।

ম্যাচের ৭৩তম মিনিটে রদ্রিগোকে ফাউল করায় প্রথমে হলুদ কার্ড ও পরবর্তীতে ভিআরের সাহায্য নিয়ে লাল কার্ড খেয়ে মাঠ ছাড়েন উরুগুয়ের নাহিতান নান্দেজ। যার ফলে ৭৪ মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয় উরুগুয়ে। রদ্রিগোর ওপর কড়া চ্যালেঞ্জের মাশুল দিতে হয় নান্দেসকে। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে একের পর এক আক্রমণ করে ব্রাজিল। ৮৪তম মিনিটে এন্ড্রিকের গড়ানো শট সহজেই তালুবন্দী করেন উরুগুয়ের গোলরক্ষক সার্জিও রোচেত। ৮৬তম মিনিটে ফ্রি-কিকে দলকে এগিয়ে নেওয়ার সুযোগ পায় ভালবার্দে। তবে, বারের ওপর দিয়ে মেরে দেন তিনি। ফলে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে। পেনাল্টি শুটআউটে তাদের ৪-২ গোলে হারিয়ে সেমিতে নাম লিখিয়েছে উরুগুয়ে। আর ব্রাজিলকে শেষ আটেই বিদায় নিতে হচ্ছে।

অর্থসূচক/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.