সিনেমা হলেও দেখা যাবে ভারত-বাংলাদেশের খেলা

গ্রুপ পর্বে শ্রীলঙ্কা, নেদারল্যান্ডস ও নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটের টিকিট পেয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু অ্যান্টিগায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হতাশায় ডুবতে হয় নাজমুল হোসেন শান্তর দলকে। শেষ আটের লড়াইয়ে মিচেল মার্শের দলের বিপক্ষে বৃষ্টি আইনে ২৮ রানে হেরেছে ।

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় ব্যবধানে হেরে যাওয়ায় প্রভাব পড়েছে নেট রান রেটেও। ফলে টেবিলে আফগানিস্তানের থেকেও নীচে অবস্থান করছে লাল-সবুজের দল। তবে ২১জুন ঘুরে দাঁড়ানো সুযোগ পাচ্ছে বাংলাদেশ। কারণ অ্যান্টিগায় ভারতের বিপক্ষে খেলতে নামবেন সাকিব-শান্তরা। ঘুরে দাঁড়ানোর ম্যাচ হলেও প্রতিপক্ষ ভারত হওয়ায় কাজটা একেবারেই সহজ হবে না বাংলাদেশের। কারণ ইতোমধ্যে আফগানিস্তানকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে আছে রোহিত শর্মার দল। আর বাংলাদেশের বিপক্ষে জিতলেই যে তাদের সেমিফাইনালের পথ অনেকখানি সহজ হয়ে যাবে।

অ্যান্টিগার স্যার ভিভিয়ান রিচার্ড স্টেডিয়ামে ২১জুন বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায় শুরু হবে ম্যাচটি। তবে ম্যাচটি শুধু টেলিভিশনের পর্দায় বা মুঠোফোনে অনলাইনেই দেখানো হবে না। বরং দেখা যাবে সিনেমা হলেও। কিন্তু বাংলাদেশের কোন সিনেমা হলে না।

ভারতের একাধিক সিনেমা হলে সম্প্রচার করা হবে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ। ভারতের মোট ২৩টি রাজ্যের সিনেমা হলে দেখা হবে সুপার এইটের ম্যাচটি। তা ছাড়া ভারত সেমিফাইনাল ও ফাইনালে উঠলেও তা দেখানো হবে বলে জানা গিয়েছে।

চলতি বিশ্বকাপে ভারত-আয়ারল্যান্ড ও ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচগুলোও সিনেমা হলে দেখিয়েছিল পিভিআর সিনেমা হল। মূলত সিনেমা চালিয়ে পিভিআর সিনেমা হলগুলো লোকসানে রয়েছে, বছরে প্রায় ৪০০ কোটি রুপি ও প্রতি ৪ মাসে প্রায় ১৩০ কোটি রুপি লোকসান হচ্ছে তাদের। এসব লোকসান দূর করতেই সিনেমা হলে বিশ্বকাপের ম্যাচ দেখানোর পথে হেটেছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিশ্বকাপে ভারের বিপক্ষে ম্যাচের পর আরও একটি ম্যাচ আছে বাংলাদেশের। আফগানিস্থানের বিপক্ষে সেন্ট ভিনসেন্টে ২৫ জুন মাঠে নামবে শান্তবাহিনী। ম্যাচটি হবে বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ছয়টায়।

অর্থসূচক/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.