পাকিস্তানের মতোই খাদের কিনারায় ইংল্যান্ড

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতের কাছে টানা দুই ম্যাচ হেরে বিপাকে পাকিস্তান। পরের রাউন্ড থেকে বিদায়ের পথে বাবর আজমের দল। পাকিস্তানের মতোই বিপদে আছে ইংল্যান্ড। স্কটল্যান্ডের সঙ্গে বৃষ্টির কারণে পয়েন্ট ভাগাভাগি হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হেরেছে তারা। এদিকে ওমানকে সাত উইকেটে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকায়ও ভালো অবস্থানে আছে স্কটল্যান্ড।

পাশাপাশি নামিবিয়াকেও হারিয়েছে স্কটল্যান্ড। আর তাই ‘বি’ গ্রুপের পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে আছে দলটি। অপরদিকে দুই ম্যাচে দুই জয়ে পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় স্থানে আছে অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ডের অবস্থান অবশ্য নামিবিয়ারও নিচে। দুই ম্যাচ খেলে একটিতে জিতেছে নামিবিয়াও। তিনে আছে তারা।

ইংল্যান্ডকে খাদের কিনারায় ফেলে দেয়া স্কটল্যান্ড টস হেরে আগে ফিল্ডিংয়ে নামে। ব্যাটিংয়ে নামা ওমান শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়েছে। দলটি নির্ধারিত ২০ ওভারে করে সাত উইকেটে ১৫০ রান। দলের হয়ে ৪০ বলে সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেন প্রতীক আথাভালে। শেষদিকে আয়ান খানের ৩৯ বলে ৪১ রানের ইনিংসে কিছুটা স্বস্তি খুঁজে পেয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটি। স্কটল্যান্ডের হয়ে ৪০ রান খরচায় দুই উইকেট নেন সাফিয়ান শরিফ।

রান তাড়ায় স্কটল্যান্ড লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ৪১ বল এবং ৭ উইকেট হাতে রেখেই। ১১ ছক্কা আর ১৩ চারে তোলা এই রানের মধ্যে তিনে নামা ব্রেন্ডন ম্যাকমুলেন খেলেন ৬১ রানের অপরাজিত ইনিংস। তার ৩১ বলে খেলা এই ইনিংসে ছিল নয়টি চার ও দুটি ছক্কার মার। এ ছাড়া ওপেনিংয়ে জর্জ মানসি খেলেন দুটি চার এবং চারটি ছয়ে ২০ বলে ৪১ রানের ইনিংস। ওমানের হয়ে একটি করে উইকেট নেন বিলাল খান, আকিব ইলিয়াস এবং মেহরান খান। ইংল্যান্ড যদি তাদের পরবর্তী ২ ম্যাচে জিতে তাহলেও পয়েন্টের দিক থেকে স্কটল্যান্ডকে পেছনে ফেলতে পারবে না।

এদিকে স্কটল্যান্ড যদি অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারে, তাহলেও নেট রান রেটে তাদেরই এগিয়ে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। গতরাতে পাওয়া বড় জয়ের পর এই মুহূর্তে স্কটল্যান্ডের নেট রান রেট ‍+২.১৬৪, অস্ট্রেলিয়ার ‍+১.৮৭৫ এবং ইংল্যান্ডের -১.৮০০।

অর্থসূচক/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.