ফাঁসছেন আরও এক পুলিশ কর্মকর্তা

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে র‍্যাবে কর্মরত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম কুমার বিশ্বাসের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত। ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন বৃহস্পতিবার (৩০ মে) এই আদেশ দেন।

গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর।

তিনি জানান, জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ভিত্তিতে র‍্যাব-২ কর্মরত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম কুমার বিশ্বাসের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান চলছে। দুদক কার্যালয়ে তাকে তলব করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি দুদকে আসেননি। তাকে সম্পদ বিবরণী জমা দেওয়ার নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এই নোটিশ পাওয়ার পর ব্যাংক হিসাব থেকে তিনি টাকা তুলে নিয়েছেন।

পিপি মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর আরও বলেন, ব্যাংক হিসাব থেকে টাকা উত্তোলনের পর র‍্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম কুমার বিশ্বাস বিদেশে চলে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। এ কারণে তার বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আবেদন করেছে দুদক। দুদকের আবেদনের পরিপেক্ষিতে উত্তম কুমার বিশ্বাসের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত।

এরআগে বেনজীর আহমেদের দুর্নীতি ও বিপুল সম্পদের তথ্য নিয়ে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হলে দেশজুড়ে তোলপাড়, হইচই পড়ে যায়। তার সম্পদের অনুসন্ধানে দুদককে চিঠি দেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন (এমপি)। এরপর দুদক বেনজীর ও তার পরিবারের সম্পদের অনুসন্ধানে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে।

প্রাথমিক অনুসন্ধানেই বেনজীর আহমেদ ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে বিপুল সম্পদের তথ্য নিশ্চিত হয়েছে দুদক। এর মধ্যে রয়েছে গোপালগঞ্জের সাহাপুর ইউনিয়নে অভিজাত ও দৃষ্টিনন্দন সাভানা ইকো রিসোর্ট, দেশের বিভিন্ন এলাকায় প্রতিষ্ঠিত ছয়টি কোম্পানি, ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় বিপুল জায়গা-জমি, পূর্বাচলে ৪০ কাঠার ওপর নির্মিত নজরকাড়া ডুপ্লেক্স বাড়ি ও পাঁচটি প্রতিষ্ঠানে অন্তত ৫০০ কোটি টাকার বিনিয়োগ।

এদিকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত থেকে বেনজীর ও তার পরিবারের সদস্যদের বিদেশযাত্রার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা আসছে বলে জানা গেছে। দুদকের অনুসন্ধান কর্মকর্তা তাদের বিদেশযাত্রা রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে দাপ্তরিক কাজ শুরু করেছেন।

৩৪ বছর ৭ মাস চাকরিজীবনে বেনজীর আহমেদ বেতনভাতা বাবদ আয় করেছেন আনুমানিক ১ কোটি ৮৪ লাখ ৮৯ হাজার ২০০ টাকা। কিন্তু তার বর্তমানে যে সম্পদ রয়েছে, বাজারমূল্য অনুযায়ী হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

অর্থসূচক/এমএস

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.