ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর কথা বিবেচনা করছে ন্যাটোভুক্ত কয়েকটি দেশ

মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো সামরিক জোটভুক্ত কয়েকটি দেশ ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর কথা বিবেচনা করছে। মার্কিন প্রভাবশালী দৈনিক নিউ ইয়র্ক টাইমস একথা জানিয়েছে।

পত্রিকাটি বলছে, ওয়াশিংটনের সরবরাহ করা অস্ত্র ব্যবস্থা মেরামত করার জন্য এরইমধ্যে মার্কিন সামরিক ঠিকাদাররা ইউক্রেনে অবস্থান করছে।

ইউক্রেনে সম্প্রতি দেড় লাখ সেনা রিক্র্যুট করেছে যাদের প্রশিক্ষণের জন্য আমেরিকা ও ন্যাটো জোটের সহযোগিতা চেয়েছে কিয়েভ সরকার। রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে গিয়ে মারাত্মকভাবে সেনা ঘাটতির মুখে পড়েছে ইউক্রেন।

নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, ন্যাটো জোটের পক্ষ থেকে ইউক্রেনে সেনা পাঠানো হলে তাতে সংকট বাড়বে কারণ রাশিয়া ইউক্রেনে ন্যাটো সেনা পাঠানোকে রেড লাইন বলে ঘোষণা করেছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর বিরোধী কিন্তু মার্কিন জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল চার্লস ও’ ব্রাউন মনে করেন ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর বিষয়টি এড়ানো সম্ভব হবে না। গতকাল ব্রাসেলস সফরের সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সময়ের ব্যবধানে আমরা সেখানে সেনা পাঠাবো।

নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, ন্যাটোভুক্ত যেকোনো দেশের প্রশিক্ষকদের হামলা থেকে রক্ষার জন্য আমেরিকাকে প্রয়োজন হবে। ফলে, চূড়ান্ত পরিণতিতে আমেরিকা এই যুদ্ধে জড়িয়ে যাবে। পার্সটুডে

অর্থসূচক/ এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.