দুর্নীতি, মাদক ও সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে সজাগ থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

দুর্নীতি, মাদক ও সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে জনপ্রতিনিধিদের সজাগ থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, দুর্নীতি, মাদক, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস থেকে সবাই যেন দূরে থাকে।

বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের শপথ অনুষ্ঠানে তিনি এ নির্দেশ দেন।

সরকারপ্রধান বলেন, প্রতিটি এলাকায় উন্নয়ন করে যাচ্ছি। আমাদের উন্নয়নের সব লক্ষ্য গ্রামের মানুষ। সে কথা মাথায় রেখেই আমাদের প্রত্যেক গ্রামের সমান উন্নয়ন হবে।

তিনি বলেন, এরই মধ্যে ব্যাপক উন্নতি হয়েছে যেটা আপনারা নিজেরাই দেখতে পারেন। এ পরিবর্তন ধরে রেখে আরও যাতে উন্নতি হয়, জনগণের কাছে দেওয়া ওয়াদা আপনাদের রক্ষা করতে হবে।

আওয়ামী লীগ সব সময় জনগণের কল্যাণ ও উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে, এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সবার আগে যেটা দরকার, জনগণের ভোটের অধিকার জনগণের হাতে ফিরিয়ে দেওয়া। গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা কায়েম করা। একমাত্র আওয়ামী লীগ যখন সরকার গঠন করেছে, তখন এ দেশের মানুষ অন্তত এটুকু পেয়েছে যে, সরকার জনগণের সেবক হিসেবে কাজ করে। যে কারণে বাংলাদেশের উন্নয়নটা সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা সেটা করতে পারতাম, যদি কোভিড-১৯ এর অতিমারি না দেখা দিত। আর এই রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ না হতো, স্যাংশন-কাউন্টার স্যাংশন, বিশ্বব্যাপী মূল্যস্ফীতি; প্রত্যেকটা খাদ্যপণ্যের দাম বেড়ে গেছে। তেলের দাম বেড়ে গেছে, জ্বালানি তেলের দাম বেড়েছে, গ্যাসের দাম বেড়েছে, পরিবহন খরচ বেড়েছে। এগুলো যদি না হতো, আমরা কিন্তু আরও দ্রুত এগিয়ে যেতে পারতাম। আমাদের দারিদ্র্যের হার আরও কমাতে পারতাম।

অনুষ্ঠানে প্রথমে শপথ নেন কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের নির্বাচিত মেয়র তাহসীন বাহার সূচনা এবং ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের নির্বাচিত মেয়র একরামুল হক টিটু। একই অনুষ্ঠানে শপথ গ্রহণ করেন কুড়িগ্রাম, ঠাকুরগাঁও, সিরাজগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলররা।

অর্থসূচক/এমএস

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.