রাফাহতে ইসরাইলি অভিযান হবে ধ্বংসাত্মক: জাতিসংঘকে ইরান

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান বলেছেন, ইসরাইল যাতে গাজা উপত্যকার সর্ব-দক্ষিণের শহর রাফাহতে নতুন করে আর কোনো পাশবিকতা চালাতে না পারে জাতিসংঘকে তা নিশ্চিত করতে হবে।

সোমবার জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের কাছে লেখা এক চিঠিতে তিনি এ আহ্বান জানিয়েছেন। রাফাহ শহরে ইসরাইলি বাহিনী পূর্ণ মাত্রার স্থল অভিযান চালালে সেখানে যে ‘ধ্বংসাত্মক’ পরিস্থিতি তৈরি হবে সে সম্পর্কে তিনি চিঠিতে সতর্ক করে দিয়েছেন।

আমির-আব্দুল্লাহিয়ান বলেন, রাফাহতে পূর্ণ মাত্রার স্থল অভিযান সেখানে আশ্রয় গ্রহণকারী প্রায় ১৫ লাখ ফিলিস্তিনির জন্য ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি তৈরি করবে। এসব ফিলিস্তিনি বহুবার আশ্রয়ের সন্ধানে এক স্থান থেকে আরেক স্থানে পালিয়ে বেড়িয়েছেন এবং শেষ পর্যন্ত রাফাহতে কোনোমতে খোলা আকাশের নীচে তাবু গেড়ে মাথা গোঁজার ঠাঁই করে নিয়েছেন।

তিনি সেখানে এমন বিপর্যয় হতে না দিতে আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, রাফাহতে সামরিক অভিযান চালানো হলে সেটি হবে ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর ইসরাইলি বাহিনীর গণহত্যার আরেকটি অধ্যায়। সম্ভাব্য সেই পরিস্থিতি প্রতিহত করা জাতিসংঘের অবশ্যপালনীয় কর্তব্য বলে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার চিঠিতে উল্লেখ করেন।

সম্প্রতি ইসরাইলের যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু গাজার সর্ব-দক্ষিণের শহর রাফাহতে স্থল অভিযান চালানো হবে বলে ঘোষণা করেন। তার ওই ঘোষণার বিরুদ্ধে আমেরিকাসহ গোটা বিশ্ব প্রতিবাদ জানায়। কিন্তু সে প্রতিবাদ উপেক্ষা করে নেতানিয়াহু বলেছেন, যারা ইসরাইলকে রাফাহতে অভিযান চালানো থেকে বিরত থাকতে বলে তারা প্রকৃতপক্ষে এই যুদ্ধে তেল আবিবকে পরাজিত হওয়ার আহ্বান জানায়। পার্সটুডে

অর্থসূচক/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.