সাংবাদিক নাদিম হত্যার দায় স্বীকার করলেন চেয়ারম্যান বাবু

জামালপুরের বকশীগঞ্জে সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিম হত্যা মামলার প্রধান আসামি মাহমুদুল আলম বাবু স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার (২৩ জুন) সন্ধ্যায় জামালপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক হাবিবুল্লাহ পিয়াস তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ইউসূফ আলী বলেন, পাঁচদিনের রিমান্ড শেষে সাংবাদিক নাদিম হত্যা মামলার প্রধান আসামি মাহমুদুল আলম বাবুকে আদালতে তোলা হয়। বিজ্ঞ আদালতে তিনি ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তিনি জড়িত থাকার কথা বলেছেন। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এদিকে হত্যা মামলার দ্বিতীয় আসামি চেয়ারম্যানপুত্র ফাহিম ফয়সাল রিফাতকে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করতে পারেনি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ জুন রাত সাড়ে ১০টায় সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবুর নেতৃত্বে তার ছেলে ফাহিম ফয়সাল রিফাতসহ ১০-১২ জন সাংবাদিক নাদিমের ওপর হামলা করেন। এ সময় নাদিমের মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করেন চেয়ারম্যানপুত্র রিফাত। পরদিন দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নাদিমের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় সাংবাদিক নাদিমের স্ত্রী মনিরা বেগম ২২ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ২০-২৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে হত্যা মামলা করেন।

এই মামলায় গত ১৮ জুন ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে তোলে পুলিশ। পরে রিমান্ড শেষ তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

অর্থসূচক/এমএস

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.