বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করতে না পারায় কপাল পুড়ল আয়ারল্যান্ডের

২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি জায়গা করে নিতে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করার বিকল্প ছিল না আয়ারল্যান্ডের। বৃষ্টির কারণে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে পরিত্যক্ত হওয়ায় সেই সুযোগ আর পাচ্ছে না অ্যান্ড্রু বালবির্নির দল। ফলে অষ্টম দল হিসেবে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার সুযোগ পেল সাউথ আফ্রিকা। আর শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে বাছাই পর্ব খেলবে আয়ারল্যান্ড।

জয়ের জন্য ২৪৭ রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা বেশ ভালোই করে আয়ারল্যান্ড। তৃতীয় ওভারে হাসান মাহমুদকে দুটি চার মেরেছিলেন পল স্টার্লিং। তাতে করে খানিকটা বিধ্বংসী হওয়ার আভাস দেন ডানহাতি এই ওপেনার। তবে স্টার্লিংকে ইনিংস বড় করার সুযোগ দেননি শরিফুল ইসলাম। বাঁহাতি এই পেসারের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে কাট করতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে থাকা মেহেদি হাসান মিরাজের হাতে ক্যাচ দেন তিনি।

১৫ রান করা স্টার্লিং ফেরার পর অ্যান্ড্রু বালবির্নিকে শুরুতেই বিদায় করেছেন হাসান। ডানহাতি এই পেসারের অফ স্টাম্পের বাইরে পড়া ডেলিভারিতে ইনসুইং করলে সেটা পড়তে পারেননি বালবির্নি। তাতে মাত্র ৫ রানে ফিরে যেতে হয় আয়ারল্যান্ডের অধিনায়ককে। পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেট হারিয়ে ৫০ রান তুলেছিল বাংলাদেশ। যেখানে সমান সংখ্যক উইকেট হারিয়ে আইরিশরা তুলতে পেরেছে ৩৯ রান।

স্টার্লি ও বালবির্নিকে হারানোর পর স্বাগতিকদের চাপ কমানোর চেষ্টা করেন স্টিফেন দোহানি ও হ্যারি টেক্টর। তবে তাদের জুটি খুব বেশি বড় হতে দেননি তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি এই স্পিনারের বলে পুশ করতে চেয়েছিলেন দোহানি। ব্যাটে-বলে ঠিকঠাক করতে না পারায় ক্যাচ চলে যায় বোলার তাইজুলের কাছে। খানিকটা সামনে ঝুঁকে ফিরতে ক্যাচ দিয়ে ১৭ রান করা দোহানিকে ফেরান বাঁহাতি এই স্পিনার।

এর কিছুক্ষণ পরই বাগড়া দেয় বেরসিক বৃষ্টি। যার ফলে লম্বা সময় বন্ধ থাকে খেলা। দ্বিতীয় ইনিংসে ১৬.৩ ওভারের সময় হানা দেয় বৃষ্টি। পরবর্তীতে বৃষ্টি থামলেও মাঠ খেলার উপযুক্ত ছিল না। আর আয়ারল্যান্ডের ব্যাটিং ইনিংসে ২০ ওভার খেলা না হওয়ায় ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ১৬.৩ ওভার শেষে ৩ উইকেটে ৬৫ রান তুলেছিল স্বাগতিকরা।

 

অর্থসূচক/এএএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.