খেরসনে ৪ শতাধিক যুদ্ধাপরাধ রাশিয়ার, দাবি জেলেনস্কির

রাশিয়া খেরসনে চার শতাধিক যুদ্ধাপরাধ করেছে বলে দাবি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির। তদন্তকারীরা দক্ষিণ খেরসনেই এতগুলি যুদ্ধাপরাধ খুঁজে বের করেছেন। বেশ কিছু পশ্চিমা রাষ্ট্রও এর আগে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ এনেছে। ইউক্রেনের কর্মকর্তারাও অনেক জায়গায় গণকবর খুঁজে বের করেছেন। ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিনাল কোর্টেও রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের মামলা চলছে।

সম্প্রতি খেরসন শহর থেকে সেনা প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করেছে রাশিয়া। গত ফেব্রুয়ারিতে আগ্রাসনের পরেই তারা এই শহর দখল করে নেয়। খেরসনের কিছু জায়গায় এখনো রাশিয়ার সেনা আছে। তবে ইউক্রেনের বাহিনী অনেকগুলি শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে।

জেলেনস্কি বলেছেন, খেরসনেও রাশিয়ার অত্য়াচারের চিহ্ন ছড়িয়ে আছে। ইউক্রেনের যেখানে রাশিয়ার সেনা ঢুকতে পেরেছিল, সেখানেই অত্যাচার করেছে বলে তার দাবি। তিনি বলেছেন, ‘আমরা প্রতিটি অপরাধীকে খুঁজে বের করব এবং শাস্তি দেব।’

জার্মানির চ্যান্সেলর শলৎস বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট পুতিন জি২০ বৈঠকে যোগ দিতে ইন্দোনেশিয়া যাচ্ছেন না। এটা লজ্জাজনক। তার মতে, পুতিনের উচিত ছিল, ইউক্রেন আক্রমণ করার জন্য তীব্র সমালোচনার মুখোমুখি হওয়া। সমালোচনার মুখে পড়তে হবে বলেই সম্ভবত তিনি যাচ্ছেন না।’ জি-২০ বৈঠকে জেলেনস্কি ভিডিও-ভাষণ দেবেন। আর রাশিয়ার প্রতিনিধিত্ব করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী লাভরভ।

খেরসনে কর্তৃপক্ষ এখন মাইন সরানোর কাজে ব্যস্ত। খেরসনের গভর্নর জানিয়েছেন, সব গুরুত্বপূর্ণ পরিকাঠামোয় রাশিয়া মাইন পেতে রেখেছে।

জেলেনস্কি জানিয়েছেন, মাইন সরাবার কাজ করতে গিয়ে এক জন মারা গেছেন ও চারজন আহত হয়েছেন। তাই বাসিন্দারা কোনো সন্দেহজনক জিনিস দেখলে সঙ্গে সঙ্গে যেন কর্তৃপক্ষকে জানায়।

এই সপ্তাহেই খেরসনে ট্রেন চলাচল শুরু হবে বলে ইউক্রেন স্টেট রেলওয়েজের তরফে জানানো হয়েছে। তবে খেরসনের বাড়িগুলিতে বিদ্যুৎ নেই, পানি নেই, গ্যাস সরবরাহেও সমস্যা রয়েছে। সূত্র: ডিডাব্লিউ, এপি, এএফপি, রয়টার্স

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...