ভ্যাট মওকুফ সুবিধার মেয়াদ শেষ ভোজ্যতেলের

ভোজ্যতেলের ভ্যাট সুবিধার মেয়াদ শেষ হয়েছে। গত সাড়ে ছয় মাস ভোজ্যতেল উৎপাদন ও ব্যবসায় পর্যায়ে মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট মুক্ত সুবিধা ছিল। তেলের মূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) এই সুবিধা দিয়েছিল, যার মেয়াদ গতকাল শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) শেষ হয়েছে।

ভোজ্য তেলে ভ্যাটের রেয়াতি সুবিধার মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে আজ শনিবার (১ অক্টোবর) পর্যন্ত অবস্থান স্পষ্ট করেনি এনবিআর।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) এক প্রজ্ঞাপনে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভোজ্যতেল আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীদের এই সুবিধা দিয়েছিল। গত মার্চ মাসে স্থানীয় বাজারে ভোজ্যতেলের দাম বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে ভোজ্যতেলের দাম লিটারে ২০০ টাকা ছাড়িয়ে যায়। বর্তমানে দাম ১৯২ টাকা।

গত ১৪ মার্চ এনবিআর প্রজ্ঞাপন জারি করে সয়াবিন ও পাম তেলের উৎপাদন পর্যায়ে ১৫ শতাংশ এবং ব্যবসায় পর্যায়ে ৫ শতাংশ ভ্যাট মওকুফ করে। এর দুই দিন পরে ভোজ্যতেলের আমদানি পর্যায়ে আরোপিত ১৫ শতাংশ ভ্যাট কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়। তখন এর মেয়াদ ঠিক করা হয় ৩০ জুন পর্যন্ত। পরে ৩ জুলাই আরেকটি প্রজ্ঞাপনে ভ্যাট মওকুফ সুবিধার মেয়াদ বাড়িয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর করা হয়। গত শুক্রবার সেই মেয়াদ শেষ হয়। নতুন করে মেয়াদ বাড়ানোর জন্য এনবিআর প্রজ্ঞাপন জারি করেনি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে বছরে ২০ লাখ টন ভোজ্যতেলের চাহিদা আছে। এর মধ্যে ২ লাখ টন স্থানীয় বাজার থেকে বাকি ১৮ লাখ টন আমদানি করা হবে।

অর্থসূচক/এএম

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...