বিদ্যুৎ বাঁচাতে আগেই বন্ধ হবে আইফেল টাওয়ারের আলো

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যুতের দাম লাফিয়ে বাড়ছে। তাই পরিস্থতি সামাল দিতে বিদ্যুতের ব্যবহার কমাতে উঠে পড়ে লেগেছে ফ্রান্স। অন্তত ১০ শতাংশ বিদ্যুৎ কম খরচ করতে চায় মাক্রোঁর দেশ। তাই স্মারকগুলিতে এখন আগের থেকে অনেক আগেই আলো বন্ধ করে দেয়া হবে। পর্যটকদের হতাশ করে অনেক আগেই বন্ধ হয়ে যাবে আইফেল টাওয়ারের আলো।

প্যারিসের মেয়র জানিয়েছেন, সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, স্বাভাবিক সময়ের থেকে আগেই স্মারকগুলির আলো বন্ধ করে দেয়া হবে।

এমনিতে রাত একটা পর্যন্ত আলোকিত থাকত আইফেল টাওয়ার। মায়াবী আলোয় আইফেল টাওয়ারের সৌন্দর্যে মোহিত হতেন পর্যটকরা। কিন্তু এখন ১১টা ৪৫ মিনিটেই বন্ধ করে দেয়া হবে সেই আলো। পর্যটকদের হতাশ করে, প্যারিসবাসীর শ্লাঘায় ঘা দিয়ে আপাতত খরচ সামলানোর দিকে নজর দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তবে নিরাপত্তার খাতিরে রাস্তার আলো বন্ধ করা হচ্ছে না।

মেয়র জানিয়েছেন, প্যারিসে বিদ্যুতের খরচ এক কোটি ইউরো বেড়ে গেছে। এই ধাক্কা সামলাতেই ঠিক হয়েছে, শহরে অন্তত ১০ শতাংশ বিদ্যুৎ কম খরচ করা হবে। আইফেল টাওয়ারে আলো আগে বন্ধ করে দিয়ে চার শতাংশ বিদ্যুৎ বাঁচবে। আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে বিদ্যুৎ সংযমের পরিকল্পনা পুরোপুরি চালু হয়ে যাবে।

ঠিক হয়েছে, পুলে তাপমাত্রা এক ডিগ্রি এক ডিগ্রি কমানো হবে। আগে তা ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে থাকত, এবার ২৫ ডিগ্রিতে থাকবে। সরকারি বাড়িতে হিটিংও কমানো হবে। তা ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে রাখা হবে। আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে এই পরিকল্পনা পুরোপুরি কার্যকর হবে।

ইইউ এখন রাশিয়ার গ্যাসের উপর থেকে নির্ভরতা কমাচ্ছে। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট মাক্রোঁও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, শিল্প, ঘরবাড়ি, পুরসভা তাদের বিদ্যুতের ব্যবহার ১০ শতাংশ কমাবে।

তবে জার্মানি বা অন্য ইইউ দেশের তুলনায় রাশিয়ার গ্যাসের উপর ফ্রান্সের নির্ভরতা কম। তা সত্ত্বেও তারা পরিস্থিতি সামলাতে এই ব্যবস্থা নিয়েছে। সূত্র: ডিডাব্লিউ, ডিপিএ, এএফপি, রয়টার্স

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...