নানা নাটকীয়তার পর ইমরান খানের প্রার্থীই পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী

নানা নাটকীয়তার পর ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থিত প্রার্থী পারভেজ এলাহীকেই পাঞ্জাব প্রদেশের নতুন মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) দেশটির সুপ্রিম কোর্ট এ ঘোষণা দেয়। এতে পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের ছেলে হামজা শাহবাজ তার পদ হারান। খবর- ডনের

প্রধান বিচারপতি ওমর আতা বান্দিয়াল, বিচারপতি ইজাজুল আহসান ও বিচারপতি মুনিব আখতারের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ পাঞ্জাবের গভর্নর বালিঘ উর রেহমানকে পাঞ্জাব প্রদেশের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে পারভেজ এলাহীকে রাত সাড়ে ১১টায় শপথ পড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে পারভেজ এলাহীকে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে স্থান দেওয়ায় সুপ্রিম কোর্টের রায়ের কঠোর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন পাকিস্তান মুসলিম লীগের (পিএমএল-এন) ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজ। তিনি এ রায়কে অবৈধ আখ্যায়িত করে ‘বিচারিক অভ্যুত্থান’ বলে উল্লেখ করেছেন।

অন্যদিকে রায়ের পর পিটিআই’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মাহমুদ কোরেশি বলেছেন, আজ সংবিধানের শাসন গ্রহণ করা হয়েছে এবং পাকিস্তানি জনগণের ম্যান্ডেটকে সম্মান করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী পদের ভোটে পিটিআই সমর্থিত পাকিস্তান মুসলিম লীগ কায়েদে আজমের (পিএমএল-কিউ) চৌধুরী পারভেজ ইলাহী ৩৭১ সদস্যের পার্লামেন্টের ১৮৬ জনের সমর্থন নিশ্চিত করেছিলেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের ছেলে হামজা শাহবাজ পান ১৭৯ ভোট। এদিন পিএমএল-কিউ দলটির প্রধান সুজাত হোসেন তাঁর দলের পার্লামেন্ট সদস্যদেরকে হামজাকে ভোট দিতে বলেছিলেন। সেই সিদ্ধান্ত অমান্য করে পিএমএল-কিউর পার্লামেন্টারি দলের ১০ সদস্য এলাহীকে ভোট দেন। সে কারণে পাঞ্জাব পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার এই দশজনের ভোট বাতিল করে দিয়ে পাকিস্তান মুসলিম লীগ নওয়াজের (পিএমএল-এন) প্রার্থী হামজাকে জয়ী ঘোষণা করেন। পিটিআই এবং তাদের শরিকরা ডেপুটি স্পিকারের এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে আদালতের দ্বারস্থ হন।

সম্প্রতি পাঞ্জাবে ২০টি আসনের উপনির্বাচনে ইমরানের দলই ১৫টি আসনে জেতে। চারটিতে জেতে পিএমএল-এনের প্রার্থীরা।

 

অর্থসূচক/এইচডি/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...