দাম বাড়বে গাড়ির

বৈদেশিক বাণিজ্যে ঘাটতি ও রিজার্ভের উপর চাপ কমাতে বিলাসী গাড়ির আমদানি পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। জাতীয় সংসদে এই প্রস্তাব অনুমোদিত হলে দেশে বিলাসী তথা বেশি সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি (সিসি) ক্ষমতাসম্পন্ন গাড়ির দাম বাড়বে।

তবে মধ্যবিত্তের জন্যে স্বস্তির খবর হচ্ছে, সাধারণ মানের গাড়ির সম্পূরক শুল্কের হার অপরিবর্তিত থাকছে।

আজ বৃহস্পতিবার (৯ জুন) জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল আগামী ২০২২-২৩ অর্থছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করেছেন। তাতে তিনি বিলাসী গাড়ির সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করেছেন।

প্রস্তাব অনুসারে, ২০০১ থেকে ৩০০০ হাজার সিসি পর্যন্ত গাড়ির আমদানি পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক হবে ২৫০ শতাংশ। বর্তমানে এই ক্যাটাগরির গাড়ি আমদানিতে সম্পূরক শুল্কের হার ২০০ শতাংশ।

৩০০১ সিসি থেকে ৪০০০ সিসি পর্যন্ত গাড়ির সম্পূরক শুল্ক ৩৫০ শতাংশ থেকে ৫০০ শতাংশ করা হয়েছে। তবে ৪০০০ সিসি এর ঊর্ধ্বের গাড়ির সম্পূরক শুল্ক আগের মতোই অর্থাৎ ৫০০ শতাংশই রাখা হয়েছে।

 মোটরগাড়ি ও জীপ এর উপর আমদানি পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধির প্রস্তাব   

বর্ণনা বিদ্যমান সম্পূরক শুল্ক হার (%) প্রস্তাবিত সম্পূরক শুল্ক হার (%)
মোটর গাড়ী এবং অন্যান্য মোটরযান, স্টেশন ওয়াগনসহ:    
(ক) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ২০০১ সিসি হইতে ৩০০০ সিসি পর্যন্ত ২০০ ২৫০
(খ) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ৩০০১ সিসি হইতে ৪০০০ সিসি পর্যন্ত ৩৫০ ৫০০
(গ) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ৪০০০ সিসি এর ঊর্ধ্বে ৫০০ ৫০০
(৫) বিযুক্ত (সিকেডি) মোটর গাড়ী, মোটর যান, স্টেশন ওয়াগন ও জীপ গাড়ীসহ:    
(ক) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ২০০১ সিসি হইতে ৩০০০ সিসি পর্যন্ত ১০০ ১৫০
(খ) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ৩০০১ সিসি হইতে ৪০০০ সিসি পর্যন্ত ৩০০ ৩৫০
(গ) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ৪০০০ সিসি এর উর্ধ্বে ৩৫০ ৫০০
সম্পূর্র্ণ তৈরি হাইব্রিড মোটর গাড়ী ও অন্যান্য মোটরযান, স্টেশন ওয়াগনসহ:    
(ক) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ২০০১ সিসি হইতে ২৫০০ সিসি পর্যন্ত ৪৫ ৬০
(খ) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ২৫০১ সিসি হইতে ৩০০০ সিসি পর্যন্ত ৬০ ১০০
(গ) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ৩০০১ সিসি হইতে ৪০০০ সিসি পর্যন্ত ১০০ ১৫০
(ঘ) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ৪০০০ সিসি এর উর্ধ্বে ৩০০ ৩৫০
(ঙ) সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ২০০১ বা তদূর্ধ্ব মাইক্রোবাস ৪৫ ৬০

 

বৈদেশিক বাণিজ্যে ঘাটতি ও রিজার্ভের উপর চাপ কমাতে এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংক ব্যক্তিগত গাড়িসহ বেশ কিছু পণ্য আমদানি ঋণপত্রের (Letter of Credit-LC) ন্যূনতম নগদ মার্জিন ২৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৭৫ শতাংশ নির্ধারণ করে। অর্থাৎ ব্যক্তিগত গাড়ি আমদানির জন্য ঋণপত্র খুলতে চাইলে, সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে ওই গাড়ির মূল্যের ৭৫ শতাংশ অর্থ ব্যাংকে জমা দিতে হবে। ব্যাংক বাকী ২৫ শতাংশের যোগান দেবে।

বিলাসী গাড়ি আমদানি নিরুৎসাহিত করতে এবার এলসি মার্জিন বৃদ্ধির পাশাপাশি আমদানি পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে বাজেটে। এই দুই ব্যবস্থার কারণে বিলাী গাড়ির দাম অনেটকা-ই বেড়ে যেতে পারে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...