এক বন্ধুকে বাঁচাতে গিয়ে ডুবে মারা গেলো দুই বন্ধু

রাজশাহীতে পদ্মা নদীতে গোসল করতে গিয়ে পানিতে তলিয়ে যায় এক কিশোর। তাকে বাঁচাতে নদীতে লাফ দেয় তার দুই বন্ধু। এতে তলিয়ে যাওয়া কিশোর বেঁচে গেলেও মারা যায় ওই দুই বন্ধু।

শুক্রবার (১৮ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর বড়কুঠি এলাকার পদ্মা নদীতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলো-রাজশাহীর বড়কুঠি এলাকার সারিকের ছেলে নিরব (১৫) ও একই এলাকার সায়েদের ছেলে শাহিন (১৬)।

নিরব নগরীর লোকনাথ স্কুলে ও শাহিন শিক্ষাবোর্ড মডেল স্কুলের পড়তো। তারা দুজনই অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল বলে জানিয়েছেন তার স্বজনেরা।

স্থানীয়রা জানান, নগরীর বড়কুঠির তীরবর্তী পদ্মা নদীতে গোসল করতে নামে সাজেদ, নিরব, শাহিলসহ আরও ৮ থেকে ১০ জন বন্ধু। এদের মধ্যে সাজেদ নদীর গভীরে গেলে তলিয়ে যেতে থাকে। তাকে তলিয়ে যেতে দেখে উদ্ধার করতে নামে নিরব ও শাহিল। তারা সাজেদকে উদ্ধার করতে পারলেও পরে নিজেরা ডুবে যায়। সঙ্গে থাকা অন্যান্যরা পরে তাদের খুঁজে পায়নি।

কিশোররা উঠে এসে স্থানীয়দের জানালে তারা ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেন। পরে রাজশাহী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরিরা নদী থেকে ওই দুই কিশোরকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যান। ততক্ষণে তারা মারা যায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনা শুনেছি। তবে এ বিষয়ে পরিবার থেকে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। ঘটনাটির তদন্ত চলছ।’

অর্থসূচক/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...