‘টেকসই শান্তির লক্ষ্য অর্জনে নারীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে’

টেকসই শান্তি ও নিরাপত্তার লক্ষ্য অর্জনে নারীদের সম্পূর্ণ ও অর্থবহ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে বলে জানান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। পিবিসি জেন্ডার স্ট্র্যাটেজি বাস্তবায়ন, সশস্ত্র সংঘাত দূরীকরণ, শান্তি ও নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে নারীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে এই সেমিনার উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) রাজধানীর কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত উইমেন পিস অ্যান্ড সিকিউরিটি সেমিনার ২০২২ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন তিনি।

স্পিকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত নারীদের উন্নয়নে বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। নারীদের সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে বর্তমান সরকার নিরলস কাজ করছে। সংসদে বর্তমানে ২৩ জন সরাসরি নির্বাচিত নারী সংসদ সদস্যের পাশাপাশি ৫০ জন সংরক্ষিত নারী সদস্য রয়েছেন। নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি নারীদের অর্থনৈতিক কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করতে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। লিঙ্গ বৈষম্য দূরীকরণ ও সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় নারীদের এগিয়ে নিতে সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান স্পিকার।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, যেকোনো দুর্যোগে নারীরা বৈষম্যের শিকার হয়ে থাকে। কোভিডকালেও নারীরা অনেক দুর্ভোগ ও নির্যাতনের শিকার হয়েছে যা অপ্রত্যাশিত। নারী নির্যাতন, লিঙ্গ বৈষম্য ও সামাজিক অসমতাকে জোরালোভাবে প্রতিরোধ জরুরি। কেননা অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনৈতিক উন্নয়ন নারীদের পেছনে রেখে সম্ভব নয়। ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই সমতাভিত্তিক বৈশ্বিক লক্ষ্য অর্জনে নারীরাই পরিবর্তনের সক্রিয় এজেন্ট।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তারা ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

অর্থসূচক/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...