বাংলাদেশকে লন্ডভন্ড করে বোল্ট বললেন, ‘এটাই টেস্টের সৌন্দর্য’

এক সপ্তাহের ব্যবধানে মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ দেখা হয়ে গিয়েছে বাংলাদেশের। মাউন্ট মঙ্গানুইতে ইতিহাস গড়া দলটি এখন ক্রাইস্টচার্চে লড়ছে ইনিংস হার এড়াতে। উড়তে থাকা মুমিনুল হকের দলকে দ্বিতীয় টেস্টে মাটিতে নামিয়ে নামিয়ে এনেছেন ট্রেন্ট বোল্ট। ঘাসে ভরা উইকেটে সুইং এবং বাউন্সের মিশ্রণে বাংলাদেশকে বিধ্বস্ত করে দেওয়ার এই পেসার বলছেন, টেস্টের সৌন্দর্য এটাই।

ক্রাইস্টচার্চে ৫ উইকেট নেওয়ার পথে টেস্টে ৩০০ উইকেটও স্পর্শ করেছেন বোল্ট। এই ক্লাবে এর আগে নাম লিখিয়েছিলেন আরও তিন কিউই। বাঁহাতি এই পেসারের সামনে দাঁড়াতে না পারা সফরকারীরা প্রথম ইনিংসে অল আউট হয়েছে ১২৬ রানে। বোল্ট ৪৩ রানে নিয়েছেন ৫ উইকেট।

দ্বিতীয় দিন সাড়ে চার সেশন ব্যাট করে ৬ উইকেটে ৫২১ রান করে ইনিংস ছেড়ে দেয় নিউজিল্যান্ড। অধিনায়ক টম লাথাম একাই করেন ২৫২ রান। জবাবে ব্যাটিং এদিন শুরু থেকেই বাংলাদেশের ইনিংসে হানা দেন বোল্ট আর টিম সাউদি। ১১ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে চা-বিরতিতে যায় সফরকারীরা। চা-বিরতির পর ফিরেও হারায় লিটন দাসের উইকেট। কেবল দুই ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলী (৫৫) ও নুরুল হাসান সোহান (৪১) ছাড়া কেউই যেতে পারেননি দুই অঙ্কে।নিজেদের চেনা কন্ডিশনে বল হাতে নিয়েই দুই দিকে সুইংয়ের ছোবলে টাইগার ব্যাটসম্যানদের ঘুম হারাম করেন বোল্ট।

তাই তো দিন শেষে এই পেসার জানালেন, ‘এটাই টেস্ট ক্রিকেটের সৌন্দর্য। ভিন্ন ভেন্যুতে ভিন্ন চিত্র এসেছে। উইকেটের ঘাস ও বাতাস এতে ভূমিকা রেখেছে। আমার মনে হয় শুরুতেই কয়েকটা উইকেট তুলে ফেলা ছন্দ এনে দেয়, চাপটা ওদের দিকেই থেকে যায়। আমরা যেটা বলেছিলাম সেটাই করতে পেরেছি। সাধারণ ব্যাপারই করেছি, ওদের সামনের পায়ে খেলতে দেওয়া।’

মেহেদী হাসান মিরাজকে দারুণ এক বলে বোল্ড করে চতুর্থ কিউই বোলার হিসেবে বাঁহাতি বোল্ট স্পর্শ করেন টেস্টে ৩০০ উইকেট। বাংলাদেশের এক ইনিংস গুটিয়ে সন্তুষ্টি থাকলে বাকি অর্ধেক কাজের দিকে মন তার, ‘অর্ধেক কাজ সারা হয়েছে। আসলেই আজকের বিকালে আমি সন্তুষ্ট।’

কিউইদের ৫২১ রানের জবাবে ১২৬ রানে গুটিয়ে ফলোঅনে পড়েছে বাংলাদেশ। সফরকারীরা এখনও পিছিয়ে আছে ৩৯৫ রানে। কিন্তু মুমিনুলদের ফলোঅন করাবে নাকি নিজেরাই ব্যাট করবে সেটা আনুষ্ঠানিকভাবে না জানালেও একটা আভাস দিনশেষে দিয়ে রেখেছেন বোল্ট। তিনি বলেন, ‘উইকেট কিছুটা ক্ষত তৈরি করছে। সকাল বেলা নতুন বল হাতে খুবই সুন্দর পরিস্থিতি হওয়ার কথা। আমার মনে হয় এটা ভেবেই তাদের রাত কাটবে।’

 

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...