খালেদা জিয়ার কিছু হলে দায়ীদের হত্যার আসামি করা হবে: মির্জা ফখরুল

খালেদা জিয়ার কিছু হলে দায়ীদের ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ার করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘আমি পরিষ্কার করে বলে দিতে চাই, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার অভাবে যদি কোনও দুর্ঘটনা ঘটে তাহলে এর জন্য দায়ী প্রত্যেককে হত্যার আসামি করে বিচার করা হবে।’

বুধবার (৫ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে তিনি এ কথা বলেন। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ আখ্যা দিয়ে এ কর্মসূচি পালন করে ঢাকা মহানগর বিএনপি।

গতকালও ডাক্তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘যেকোনও সময় খালেদা জিয়ার কিছু হয়ে যেতে পারে। এটা প্রমাণিত হয়েছে, তারা খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দিতে চায়। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে খালেদা জিয়াকে দেশের বাইরে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। তারা পূর্বপরিকল্পিতভাবে খালেদা জিয়াকে হত্যা করতে চায়।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আওয়ামী লীগের বিরাজনীতি করণের নীল নকশায় খালেদা জিয়াকে মাইনাস করার চক্রান্ত হচ্ছে। তাকে একটা মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারান্তরীণ করে রাখা হয়েছে। জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণেও তাকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য যেতে দেওয়া হচ্ছে না। তারা আইনের কথা বলে মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টা করছে। আইন মানুষের চেয়ে বড় নয়।’

সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হককে দেশে গণতন্ত্র হত্যার প্রধান নায়ক আখ্যা দিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ যখন দেখলো, জনগণ তাদের ভোট দেবে না, তখন তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন ব্যবস্থা বাতিল করে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন করার উদ্যোগ নিলো। এতে প্রধান নায়কের ভূমিকায় ছিলেন সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হক। তাই ভবিষ্যতে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হলে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা হলে বিচারপতি খায়রুল হকের বিচার করা হবে।’

খালেদা জিয়াকে বিদেশ পাঠানোর দাবিতে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘খালেদা জিয়ার যে অবদান এ দেশের প্রতি, দেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়নের জন্য তিনি যে অবদান রেখেছেন; সেটা স্বীকার করে এই সরকারের উচিত তাকে বিদেশে চিকিৎসা জন্য পাঠানো।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের সামনে কঠিন পথ, এ পথ আমাদের পাড়ি দিতে হবে অত্যন্ত সুশৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে। আমাদের অত্যন্ত ঐক্যবদ্ধভাবে পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।’

ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি’র আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিমুজ্জামান সেলিম, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

অর্থসূচক/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...