সেমিফাইনালে নিজের পারফরম্যান্সে হতাশ হাসান

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেমিফাইনাল ম্যাচে খরুচে বোলিং করেছেন হাসান আলী। পাশাপাশি ফেলেছেন সহজ ক্যাচ। যার ফলে পাকিস্তানি সমর্থকদের চোখে রীতিমতো খলনায়ক বনে গেছেন এই ডানহাতি পেসার। দল হারার পেছনে হাসানের পারফরম্যান্স যে কিছুটা হলেও দায়ী তা অনুধাবন করতে পেরেছেন তিনি নিজেও! তাই নিজের দায় স্বীকার করে হাসান বলেছেন, তার পারফরম্যান্সে তিনি নিজে সবার থেকে বেশি হতাশ হয়েছেন।

টি-টয়েন্টি বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেছে পাকিস্তান। সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারার আগে অপরাজিত ছিল বাবর আজমের দল। পাকিস্তান দারুণ পারফরম্যান্স করলে আসরে একেবারে সাদামাটা ছিলেন হাসান। ৬ ম্যাচ খেলে শিকার করেছেন ৫ উইকেট।

এছাড়াও সেমিফাইনালে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ক্যাচ ছেড়েছেন তিনি। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ১৭৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নামার পর ম্যাচের একপর্যায়ে অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ১০ বলে ২০ রান। শাহিন আফ্রিদির বলে তখন মিড উইকেট অঞ্চলে ওয়েডের ক্যাচ ছাড়েন হাসান। সেই বলেই দুই রান নেন ওয়েড। এরপরের তিন বলে তিনটি ছক্কা হাঁকিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে জিতিয়ে দেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটার। ম্যাচের পর পুরো পাকিস্তানে ‘শত্রু’তে পরিণত হন হাসান।

হাসান বলেন, ‘আমি জানি, আপনারা সবাই হতাশ। কারণ আমার পারফরম্যান্স আপনাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি। তবে আমার চেয়ে বেশি হয়তো কেউ নয়। আমার প্রতি প্রত্যাশা বদলাবেন না। আমার যতটা সম্ভব পাকিস্তান ক্রিকেটকে দিতে চাই। তাই আবারও কঠোর পরিশ্রম করছি।’

হাসান অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে বাজে পারফর্ম করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ সব জায়গায় ভক্তদের সমালোচনার মুখে পড়েছেন। তবে তার এমন সময়েও পাশে ছিল জাতীয় দল সতীর্থ, সাবেক ক্রিকেটারসহ তার শুভাকাঙীরা। খারাপ সময়ে তাদের পাশে পেয়ে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ এই ডানহাতি পেসার।

হাসান সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, ‘এই সময়টা আমাকে আরও শক্তিশালী করবে। বার্তা, টুইট, পোস্ট, ফোন কল ও প্রার্থনার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।’

 

অর্থসূচক/এএইচআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •