জিতেও দক্ষিণ আফ্রিকার বিদায়, হেরে সেমিফাইনালে ইংল্যান্ড

বাঁচা-মরার ম্যাচে রাসি ভ্যান ডার ডুসেন ও অ্যাইডেন মার্করামদের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে সেমিফাইনালে যেতে ইংল্যান্ডকে ১৩১ বা তার চেয়ে কম রানে রুখে দিতে হতো প্রোটিয়াদের। তবে সেই সমীকরণ মেলাতে পারেননি অ্যানরিখ নকরিয়া-কাগিসো রাবাদারা। তাতে জয় পেয়েও সুপার টুয়েলভ থেকে বাদ পড়ল দক্ষিণ আফ্রিকা। এদিকে অস্ট্রেলিয়াকে সঙ্গে নিয়ে শেষ চারে জায়গা করে নিল ইংল্যান্ড।

শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভারে মাত্র দুটি উইকেট হারিয়ে ১৮৯ রানের বড় সংগ্রহ পেয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২০ ওভারে ১৭৯ রান তোলে ইংল্যান্ড। তাতে ১০ রানের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় ইংলিশদের। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যা তাঁদের প্রথম হার।

জয়ের জন্য ১৯০ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ডকে দুর্দান্ত শুরু এনে দেন জস বাটলার ও জেসন রয়। শুরুর চার ওভারেই ৩৭ রান তোলেন দুই ওপেনার। তবে পঞ্চম ওভারের প্রথম বলেই মাঠ ছাড়তে হয় দারুণ ব্যাটিং করতে থাকা রয়কে। ১৫ বলে ২০ রান করা ডানহাতি এই ব্যাটার হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে মাঠ ছাড়লে ব্যাটিংয়ে নামেন মঈন।

পাওয়ার প্লের শেষ ওভার সাজঘরে ফেরেন ১৫ বলে ২৬ রান করা বাটলার। নরকিয়ার পঞ্চম স্ট্যাম্পের স্লোয়ার বল তুলে মারতে গিয়ে মিড অনে থাকা টেম্বা বাভুমার হাতে ক্যাচ দেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটার। সুবিধা করতে পারেননি চারে নামা জনি বেয়ারস্টো। ৩ বলে ১ রান করে তাবরাইজ শামসির বলে লেগ বিফোর উইকেটের ফাঁদে পড়ে প্যাভিলিয়নের পথে হেঁটেছেন তিনি।

৫৯ রানে ২ উইকেট হারানোর পর মঈন ও মালান মিলে দারুণ এক জুটি গড়েন। চতুর্থ উইকেট জুটিতে তারা দুজনে মিলে যোগ করেন ৫১ রান। শামসির বলে লং অনে দাঁড়িয়ে থাকা ডেভিড মিলারকে ক্যাচ দিয়ে ৩৭ রান করা মঈন ফিরলে ভাঙে তাদের এই জুটি। ২৬ বলে ৩৩ রানে করে আউট হয়েছেন মঈনকে সঙ্গ দেয়া মালান।

শেষ দিকে লিভিংস্টোন ১৭ বেল ২৮ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন। তবে জয়ের জন্য সেটা যথেষ্ট ছিল না। শেষ ওভারের প্রথম তিন বলে ক্রিস ওকস, ইয়ন মরগান ও আদিল রশিদকে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন রাবাদা। যা এবারের আসরের তৃতীয় হ্যাটট্রিক এবং টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে চতুর্থ। তাতে ১০ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। সমীকরণ মেলাতে না পারায় জয় পেয়েও সুপার টুয়েলভ থেকে প্রোটিয়াদের বিদায়।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৮৯ রান সংগ্রহ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। অপরাজিত থেকে দলটির হয়ে সর্বোচ্চ ৯৪ রান করেছেন ভ্যান ডার ডুসেন। এ ছাড়া মার্করাম অপরাজিত ৫২ এবং কুইন্টন ডি কক করেছেন ৩৪ রান। ইংল্যান্ডের হয়ে একটি করে উইকেট নিয়েছেন মঈন ও রশিদ।

 

অর্থসূচক/এএইচআর

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •