আফগানিস্তানের ১৩০ রানের জয়

হযরতউল্লাহ জাজাই, রহমানুল্লাহ গুরবাজ এবং নাজিবুল্লাহ জাদরানের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ১৯০ রানের বড় সংগ্রহ পেয়েছিল আফগানিস্তান। সেই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় স্কটল্যান্ড। মুলত দুই স্পিনার রশিদ খান ও মুজিব উর রহমানের দুর্দান্ত বোলিংয়ে মাত্র ৬০ রানে অল আউট হয় স্কটিশরা। তাতে ১৩০ রানের বড় জয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করল মোহাম্মদ নবির দল।

জয়ের জন্য ১৯১ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে আফগানিস্তান স্পিনারদের কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে স্কটল্যান্ডের ব্যাটাররা। কাইল কোয়েটজার ও জর্জ মানজি আক্রমণাত্বক শুরুর আভাস দিলেও সেটা কাজে আসেনি। চতুর্থ ওভারে কোয়েটজারকে সাজঘরে ফিরিয়ে আফগানদের প্রথম ব্রেক থ্রু এনে দেন মুজিব।

সেই ওভারের বাকি চার বলের মাঝে ফেরেন কলাম ম্যাকলয়েড ও রিচি বেরিংটন। তারা দুজনই প্যাভিলিয়নের পথে হেঁটেছেন কোন রান না করেই। পরের ওভারে এসে ম্যাথু ক্রসকে আউট করে নাভিন উল হক। উইকেটরক্ষক ব্যাটার ক্রসও ফেরেন শূন্য রানে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইতিহাসের দ্বিতীয়বারের মতো ৩,৪ এবং ৫ নম্বর ব্যাটার শূন্য রানে আউট হয়েছেন। এর আগে ২০১৪ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একই কাণ্ড ঘটিয়েছিলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, রস টেলর ও জিমি নিশাম। এদিকে মার্ক ওয়াটকে ফিরিয়ে ৫ উইকেট পূর্ণ করেন মুজিব। যেখানে রান দিয়েছেন ২০।

এদিন লেগ স্পিনার রশিদও ছিলেন দুর্দান্ত। ২.২ ওভার বোলিং করে মাত্র ৯ রানে ৪ উইকেট তুলে নিয়েছেন তিনি। মিচেল লিস্কের সঙ্গে ক্রিস্টোফার গ্রিভস, জস ডেভি ও ব্র্রাডলি হোয়াইলকে সাজঘরে পাঠিয়েছেন সময়ের অন্যতম সেরা এই লেগ স্পিনার। এই দুজনের ঘূর্ণিতে স্কটল্যান্ডকে ৬০ রানে অল আউট করে ১৩০ রানের জয় তুলে নিয়েছে আফগানিস্তান।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৯০ রান তোলে আফগানিস্তান। যেখানে জাজাই ৪৪, গুরবাজ ৪৬, নাজিবুল্লাহ ৫৯ এবং মোহাম্মদ শাহজাদ করেছেন ২২ রান। স্কটিশদের হয়ে শারিফ দুটি উইকেট নিয়েছেন।

অর্থসূচক/এএইচআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •