গ্রিসেও ভয়াবহ দাবানল, নিহত ২

0
95

তুরস্কে স্মরণকালের ভয়াবহ দাবানলে মাইলের পর মাইল বনভূমি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এবার প্রতিবেশী গ্রিসেও ছড়িয়ে পড়েছে এ দাবানল। ভয়াবহ আগুনে গ্রিসের এক কৃষক এবং দমকল বাহিনীর এক উদ্ধরকর্মী (৩৮) দগ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। খবর বিবিসির

গত ৩ আগস্ট দুপুর থেকে দেশটিতে অগ্নিকাণ্ড শুরু হয় এবং কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই গ্রিসের এথেন্সেসহ মোট ৮১ স্থানে দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। কয়েকশ অগ্নিনির্বাপক গাড়ি আগুন নেভানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। হেলিকপ্টার এবং বিমান দিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

হাজার হাজার মানুষ জীবন বাঁচাতে ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন। দুইজন অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যুর পাশাপাশি অনেকে গুরুতর আহত হয়েছেন।দাবানল সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন অগ্নিনির্বাপণ কর্মীরা। গ্রিসে তাপপ্রবাহের এমন তীব্রতার কারণে দেশটিতে দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানা গেছে।

গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী কিরিয়াকোস মিতসোতাকিস বলেছিলেন, ১৯৮৭ সালের পর এবারই সবচেয়ে ভয়াবহ তাপপ্রবাহের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে তার দেশ। সামনের দিনগুলোতে দেশটির তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠতে পারে বলেও আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

প্রতিবেশী রাষ্ট্র তুরস্কও দাবানলের সঙ্গে লড়াই করছে। দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ দাবানলে হাজার হাজার মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে, দাবানলে দেশটির একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র হুমকির মুখে আছে। এই সপ্তাহে ইতালির সিসিলি দ্বীপেও গরম বাতাস ছড়িয়ে পড়েছে।

জুলাইয়ের শেষে তুরস্কের দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলীয় উপকূলে দাবানলে অন্তত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া হাজার হাজার মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে, এঁদের মধ্যে অনেক পর্যটকও রয়েছেন, যাঁরা নৌকায় করে রিসোর্ট ছেড়ে গেছেন।

ইউরোপিয়ান ফরেস্ট ফায়ার ইনফরমেশন সিস্টেম জানিয়েছে, তুরস্কে এই বছর প্রায় ১ লাখ ৬০ হাজার হেক্টর বন পুড়ে গেছে। আগুনে পুড়ে সেখানকার গ্রিনভিল শহর প্রায় ধ্বংস হয়ে যাওয়ায় নিরাপদে সরে যেতে বলা হয়েছে শহরটির ৮০০ বাসিন্দাকে।

অর্থসূচক/এএইচআর