মহাসড়কে কেটে যাচ্ছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা

ঢাকা-টাঙ্গাইল ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় আজ রোববার (১৮ জুলাই) সকাল থেকেই যানবাহনের চাপ বাড়তে শুরু করেছে। আজ দুপুরের পর থেকে অনেক শিল্পকারখানা ছুটি ঘোষণা করেছে বলে জানা গেছে। এর প্রভাবে দুপুরের পর যানবাহন ও ঘরমুখী মানুষের চাপ আরও কয়েক গুণ বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দূরপাল্লার যানবাহনগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করলেও ছোট যানবাহনগুলোয় স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। আগের মতো পুলিশের তদারকি তেমনটা না থাকায় যানবাহনের চালক ও সহযোগীরা স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা করছেন না।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় সকাল থেকেই উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন এলাকার মানুষ ভিড় করছেন। যাদের আগে থেকে টিকিট কাটা রয়েছে, তারা নির্ধারিত কাউন্টার থেকে বাসে উঠে যাচ্ছেন। কিন্তু যাদের আগে থেকে টিকিট কাটা নেই, তারা বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষায় আছেন বাসের।

এদিকে গত কয়েকদিন ধরে ভোররাত থেকেই ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে রোববার (১৮ জুলাই) ভোর থেকেই মহাসড়কের ২০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন ঘরমুখো মানুষ। এছাড়াও উত্তরবঙ্গ থেকে কোরবানির পশু ঢাকায় নিতে গিয়েও ভোগান্তিতে পড়ছেন খামারি ও ব্যবসায়ীরা।

সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম গোলচত্বর থেকে হাটিকুমরুল গোলচত্বর পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার মহাসড়কে আজও ধীরগতিতে চলছে যানবাহন। মহাসড়কটির বেশ কয়েকটি স্থানে রয়েছে যানজট। এ ছাড়া ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কেও ধীরগতিতে চলছে যানবাহন।

স্বাভাবিক গতিতে যানবাহন চলাচল না করায় ঘরমুখী মানুষদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা কেটে যাচ্ছে মহাসড়কে। আজ রোববার ভোর থেকে দেশের প্রায় সব মহাসড়কজুড়ে এই চিত্র দেখা যায়। এর আগে রাতভর তীব্র যানজটে স্থবির হয়ে ছিল মহাসড়কগুলো।

ঈদ যতই ঘনিয়ে আসছে ততই মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে গণপরিবহন খুলে দেওয়ার পর থেকেই প্রতিদিন যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। যানজটের কারণে চালক ও যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে চরম ভোগান্তি। এছাড়াও কোরবানির পশু নিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ঢাকা অভিমুখে যাত্রা করা ব্যবসায়ীরা পড়েছেন চরম বেকায়দায়। তবে ঢাকামুখী যানবাহনের চাপ অনেকটাই কম বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে মহাসড়কে স্বাভাবিকের চেয়ে তিনগুণ বেশি পরিবহন, দফায় দফায় বঙ্গবন্ধু সেতুতে টোল আদায় বন্ধ ও সিরাজগঞ্জ অংশে পরিবহনগুলো চলাচলে বাঁধাপ্রাপ্ত হওয়াকে দায়ী করছে পুলিশ প্রশাসন।

এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইয়াসির আরাফাত বলেন, মহাসড়কে ভোর থেকে গাড়ির চাপ রয়েছে। স্বাভাবিক দিনের চেয়ে মহাসড়কে গাড়ি তিনগুণ বেড়ে গেছে। গতকালও সারাদিন মহাসড়কের টাঙ্গাইলের রাবনা বাইপাস থেকে বঙ্গবন্ধু সেতূপূর্ব পর্যন্ত যানবাহনের ধীরগতি ছিল। আজও যানজট রয়েছে। যানজট নিরসনে পুলিশ কাজ করছে বলে জানান তিনি।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক বিভাগ) মো. মেহেদী হাসান বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অন্যান্য দিনের মতোই যানবাহনের চাপ রয়েছে। তবে ঘরমুখী মানুষের ভিড় বাড়ছে। কারখানা ছুটি হলে যানবাহনের চাপ আরও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

অর্থসূচক/কেএসআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...