রাবাদার ‘ডাবল সেঞ্চুরি’

0
199

অফ স্ট্যাম্পের বাইরে ফেলে দারুণ এক ইন সুইঙ্গারে হাসান আলীর মিডল স্ট্যাম্প উপরে ফেলেন কাগিসো রাবাদা। তাতে ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন দক্ষিণ আফ্রিকার এই পেসার। ৮ম প্রোটিয়া পেসার হিসেবে এই মাইলফলক স্পর্শ করেছেন তিনি। এদিন ৭০ রানে ৩ উইকেটে নিয়েছেন ডানহাতি এই পেসার।

এই কীর্তি গড়তে তাঁর লেগেছে ৪৪ টেস্ট, যা ইনিংস হিসেবে ৭৯। যা কি-না ডেল স্টেইন (৩৯) এবং অ্যালান ডোনাল্ডের (৪২) পর তৃতীয় দ্রুততম পেসার হিসেবে এই মাইলফলক স্পর্শ করেছেন তিনি। এ ছাড়া বিশ্বের চতুর্থ তরুণ বোলার হিসেবে ২০০ উইকেটে নিয়েছেন তিনি।

বল ডেলিভারির হিসেবে পাকিস্তানের ওয়াকার ইউনুস এবং স্টেইনের পর রাবাদাই সবচেয়ে দ্রুততম। এখন পর্যন্ত ৪৪ টেস্ট খেলা রাবাদা সমান ৯বার করে ৪ ও ৫ উইকেট নিয়েছেন এবং ৪ ম্যাচে নিয়েছেন ১০ উইকেট করে। ১৯৭ উইকেটে নিয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টে খেলতে নামেন রাবাদা। প্রথম দিনে আবিদ আলী এবং ইমরান বাটকে সাজঘরে ফিরিয়ে ১৯৯ এ পৌঁছান তিনি। প্রথম দিনের শেষ বিকেলে দারুণ বোলিং করা ডানহাতি এই পেসার দ্বিতীয় দিন ছিলেন একেবারেই নিষ্প্রভ।

যদিও দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকেলে ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করার সুযোগ পেয়েছিলেন ২৫ বছর বয়সি এই পেসার। তবে সেটা ভেস্তে গেছে অধিনায়ক কুইন্টন ডি ককের ভুলে। উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে ফাহিম আশরাফের ক্যাচ ছেড়ে দিলে অপেক্ষা বাড়ে রাবাদার। তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনেই হাসানকে ফিরিয়ে অপেক্ষার অবসান ঘটান এই প্রোটিয়া পেসার।

এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন স্টেইন (৪৩৯), শন পোলক (৪২১), মাখায়া এনটিনি (৩৯০), ডোনাল্ড (৩৩০), মরনে মরকেল (৩০৯), জ্যাক ক্যালিস (২৯১), ভারনন ফিল্যান্ডার (২২৪)।

 

 

অর্থসূচক/এএইচআর