রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে ফাইনালে বার্সা

0
50

জিতলেই ফাইনালে, হেরে গেলে বিদায়- এমন কঠিন ম্যাচে চাপের মুখে দাঁড়িয়ে কোন ভুল করেননি বার্সার পুইগ। নির্ধারিত ৯০ মিনিটের পর অতিরিক্ত ত্রিশ মিনিটেও এলো না ফলাফল। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে বার্সার জয়ের পথ সহজ করে দিলেন ২১ বছর বয়সী রিকি পুইগ। তাঁর দুর্দান্ত গোল সেভে টাইব্রেকারে রিয়াল সোসিয়েদাদকে উড়িয়ে স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে উঠল বার্সেলোনা।

শেষের নায়ক যদি রিকি পুইগ হন, তাহলে ম্যাচের মূল নায়ক নিঃসন্দেহে গোলরক্ষক মার্ক টের স্টেগান। যার অতিমানবীয় পারফরম্যান্সের কল্যাণে টাইব্রেকারে রুদ্ধশ্বাস জয় পেয়েছে বার্সা। যদিও ম্যাচটিতে ছিলেন না দলের প্রাণভোমরা লিওনেল মেসি। পুরো ম্যাচজুড়েই অনুভূত হয়েছে তার অভাব। পুরো ১২০ মিনিটে একটির বেশি গোল করতে পারেনি বার্সেলোনা। উল্টো সোসিয়েদাদের আক্রমণে কেঁপেছে বার্সার রক্ষণ, বারবার দলকে উদ্ধার করেছেন জার্মান গোলরক্ষক স্টেগান।

বুধবার (১৪ জানুয়ারি) সুপার কাপের সেমিফাইনালে টাইব্রেকারে রিয়াল সোসিয়েদাদকে ৩-২ গোলে হারায় বার্সা। টাইব্রেকারে রিয়ালের জন বাউতিস্তা ও ওইয়ারসাবালের শট ঠেকিয়ে দেন বার্সা গোলরক্ষক স্টেগেন। পোস্টে মারেন উইলিয়ান জোসে। সফল কিক নিতে পারেন মিকেল মেরিনো ও আদনান ইয়ানুজাই। অন্যদিকে বার্সেলোনার হয়ে প্রথম শট পোস্টে মারেন ডি ইয়ং। পরের দুটি শট সফলভাবে মারেন উসমান দেম্বেলে ও মিরালেম পিয়ানিচ। গোল মিস করেন গ্রিজম্যান। শেষে রিকি জালে বল পাঠালে মেসিকে ছাড়াই সেমিফাইনাল জিতে বার্সেলোনা পেয়ে যায় স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালের টিকিট।

এর আগে ম্যাচের ৩৯ মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সা। মার্টিন ব্রাথওয়েটের পাস বাঁ দিক থেকে ছয় গজ বক্সের মুখে ক্রস বাড়ান গ্রিজম্যান। সেখানে ছিলেন ডি ইয়ং; সুযোগ হাতছাড়া না করে হেডে গোল আদায় করে নেন তিনি। তবে এগিয়ে যাওয়ার সুফল ধরে রাখতে পারেনি বার্সা। দ্বিতীয়ার্ধে গোল শোধের জন্য বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি সোসিয়েদাদকে। ম্যাচের ৫১ মিনিটের সময় ডি-বক্সের মধ্যে হ্যান্ডবল করেন ফ্রেংকি ডি ইয়ং। ফলে পেনাল্টি পায় সোসিয়েদাদ। সফল স্পট কিকে দলকে লিড এনে দেন মিকেল ওয়ারজাবাল। এরপর অতিরিক্ত সময়েও গোল না আসলে ম্যাচটির ফল মেলে টাইব্রেকারে।

আরেক সেমিফাইনালে আজ মুখোমুখি হবে রিয়াল মাদ্রিদ ও অ্যাথলেটিকো বিলবাও। আগামী ১৭ জানুয়ারি হবে টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ।

অর্থসূচক/এএইচআর