ট্রাম্পকে অপসারণে কংগ্রেসে প্রস্তাব পাস, পেন্সের নাকচ

0
144

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে (প্রতিনিধি পরিষদ) উত্থাপিত ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগের প্রস্তাব পাশ হয়েছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাতে হাউসে ২২৩-২০৫ ভোটে প্রস্তাবটি পাস হয়।

তবে এর আগেই মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স পরিষ্কার জানিয়ে দেন, ২৫তম সংশোধনী দিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অপসারণের উদ্যোগ তিনি নেবেন না। হাউসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে একটি চিঠি লিখে ট্রাম্পকে অপসারণের প্রস্তাব আগাম নাকচ করে দেন পেন্স।

সিএনএন জানিয়েছে, প্রতিনিধি পরিষদে ভোটের কয়েক ঘণ্টা আগে ন্যান্সি পেলোসিকে এক চিঠিতে পেন্স বলেছেন, ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে সরাতে তিনি ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগ করবেন না। তার মতে, এটি ভয়ংকর নজির তৈরি করবে। এই দাবি থেকে আমাদের সরে আসতে হবে। এই মুহূর্তে এমন আবেগ দেশকে আরও বিভক্ত করবে ও অশান্তি সৃষ্টি করবে।

এদিকে আইনপ্রণেতা জ্যামি রাসকিনের নেতৃত্বে নয় আইনপ্রণেতাকে নিয়ে অভিশংসন কমিটি গঠন করেছেন স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। তারা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসনের জন্য যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবেন। ২৫তম সংশোধনী ব্যবহারের আহ্বান ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আমলে না নিলে অভিশংসন বুধবার ভোটাভুটিতে যাবেন ডেমোক্র্যাটরা। স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এমনটি জানিয়েছিলেন।

এ বিষয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলছেন, ‘আমি মনে করি এটা (অভিশংসনের প্রস্তাব) আমাদের দেশের জন্য ভয়াবহ বিপদ ডেকে আনবে এবং ব্যাপক ক্ষোভ তৈরি করবে। আমি কোন সহিংসতা চাই না।’

এদিকে প্রতিনিধি পরিষদের তৃতীয় সর্বোচ্চ সিনিয়র রিপাবলিকান লিজ চেনি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, গত সপ্তাহের ক্যাপিটল ভবনে হামলার ঘটনায় ট্রাম্পের অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেবেন তিনি।

সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ডিক চেনি’র মেয়ে এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের আর কোনো প্রেসিডেন্ট অফিস ও সংবিধানের প্রতি তার শপথের বিরুদ্ধে এতো বড় বিশ্বাসঘাতকতা করেননি। ট্রাম্প সহিংস জনতাকে আহ্বান জানিয়েছিলেন, তাদেরকে একত্রিত করেছিলেন এবং এই হামলা উস্কে দিয়েছিলেন।’ হাউসের দুই রিপাবলিকান সদস্য জন কাটকো ও অ্যাডাম কিনজিংগারও অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন।

গত ৬ জানুয়ারি কংগ্রেসে জো বাইডেনের জয়ের আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি অনুষ্ঠান শুরু হলে, ট্রাম্পের একদল সমর্থক ক্যাপিটল ভবনে সহিংস হামলা চালিয়েছিল। এ ঘটনায় ক্যাপিটল পুলিশের দুই কর্মকর্তাসহ পাঁচ জন নিহত হয়েছেন। পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ট্রাম্পের উস্কানিমূলক বক্তব্যের কারণেই এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। তবে সমর্থকদের ক্যাপিটলে হামলার ঘটনায় কোনো দায় নেননি ট্রাম্প।

আগামী ২০ জানুয়ারি নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেবেন জো বাইডেন।

অর্থসূচক/এএইচআর