রোনালদোর রেকর্ডের রাতে জুভেন্টাসের জয়

রোনালদোর রেকর্ড ছোয়ার রাতে জয়টা সহজ ছিল না জুভেন্টাসের। ঘরের মাঠে খেলা ম্যাচের প্রথমার্ধে গোল পায়নি তারা। প্রথমার্ধের একদম শেষ দিকে লাল কার্ড দেখেন সাসৌলোর পেদ্রো অবিয়াঙ। ফলে দ্বিতীয়ার্ধের পুরোটা সময় দশজনের বিপক্ষে খেলার সুবিধা পেয়ে যায় জুভেন্টাস।

কারণ গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটে চ্যাম্পিয়নদের এগিয়ে নেন দানিলো। ডি-বক্সের অনেকটা বাইরে থেকে ডান পায়ের জোরালো শটে ঠিকানা খুঁজে নেন এই ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার। তবে জুভেন্টাসের এগিয়ে যাওয়ার আনন্দ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ৫৮তম মিনিটে সতীর্থের পাসে জোরালো শটে সফরকারীদের সমতায় ফেরান গ্রেগোয়া দুফেল।

এর পরই পয়েন্ট হারানোর শঙ্কায় পড়ে জুভেন্টাস। পুরো দ্বিতীয়ার্থ ১০ জন নিয়ে খেলা সস্যুয়ালোকের বিরুদ্ধে গোল পেতে মরিয়া হয়ে গোল পাচ্ছিল না রোনালদোরা। তবে ৮২তম মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন র‍্যামজি। বাঁ দি থেকে সতীর্থের পাস ডি-বক্সে পেয়ে জালে পাঠান ওয়েলসের এই মিডফিল্ডার। যোগ করা সময়ে তৃতীয় গোলটি করেন রোনালদো। নিজেদের অর্ধ থেকে দানিলোর উঁচু করে বাড়ানো বল ধরে ডি-বক্সে ঢুকে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড।

শেষের গোলটি করে দলের জয়ে সরাসরি অবদান রাখার পাশাপাশি একটি রেকর্ডও গড়েছেন রোনালদো। ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে অফিসিয়াল গোলের হিসেবে তিনিই এখন সর্বোচ্চ গোলদাতা। তবে এককভাবে নন। মূলত তিনি ভাগ বসিয়েছেন জোসেফ বিকানের রেকর্ডে। দুজনেরই গোল সংখ্যা ৭৫৯টি করে। এ রেকর্ড ছুঁতে রোনালদো খেলেছেন ১০৩৯টি ম্যাচ। আর মাত্র একটি গোল করলেই ফুটবল ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে যাবেন পর্তুগিজ সুপারস্টার।

১৬ ম্যাচে ৯ জয় ও ৬ ড্রয়ে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে চারে জুভেন্টাস। এক ম্যাচ বেশি খেলে ২৯ পয়েন্ট নিয়ে সাতে সস্যুয়ালো। ১৭ ম্যাচ থেকে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে এসি মিলান। সমান ম্যাচে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে ইন্টার মিলান। আর রোমা ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনে।

 

অর্থসূচক/এএইচআর

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.