১২ বছরে পদার্পণ করলো কালের কণ্ঠ

অগণিত পাঠকের ভালোবাসায় সিক্ত কালের কণ্ঠ ১২ বছরে পদার্পণ করলো। বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় ইস্ট-ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপে কালের কণ্ঠ অফিসে কেক কেটে দেশের অন্যতম শীর্ষ এই দৈনিকের জন্মদিন উদযাপন করা হয়েছে।

জাতিকে ‘আংশিক নয় পুরো সত্য’ জানানোর অঙ্গীকার নিয়ে ২০১০ সালের ১০ জানুয়ারি যে পথচলা শুরু হয়েছিল, পাঠকের অব্যাহত আস্থা ও ভালোবাসায় তা অব্যাহত রয়েছে।

প্রতি বছর জমকালো উৎসবের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করেছে কালের কণ্ঠ। জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে নানা শ্রেণি পেশার বিশিষ্টজনরা আসতেন কালের কণ্ঠ ভবন কিংবা অনুষ্ঠানস্থলে। দেশের খ্যাতিমানদের পাশাপাশি কালের কণ্ঠ পরিবারের সদস্য ও পাঠক-শুভানুধ্যায়ীদের মিলনমেলায় পরিণত হতো প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর বর্ণিল আয়োজন। কেন্দ্রীয় আয়োজনের পাশাপাশি নানামাত্রিক অনুষ্ঠান হতো দেশব্যাপী। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে সঙ্গত কারণে এবার বর্ণাঢ্য কোনো আয়োজন নেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরোয়া পরিবেশে জন্মদিন উদযাপন করা হচ্ছে।

শনিবার সন্ধ্যায় নিজ বাসভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে কেক কেটে এগারোতম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভ সূচনা করেন দেশের শীর্ষ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। এ সময় কালের কণ্ঠ সম্পাদক ও ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পরিচালক কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন, এডিটরিয়াল বোর্ড সদস্যবৃন্দ এবং সিনিয়র সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় সায়েম সোবহান আনভীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কালের কণ্ঠ পরিবারের সদস্য এবং পাঠক-শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। তিনি পত্রিকাটির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি প্রত্যাশা করেন।

শুরু থেকেই কালের কণ্ঠ মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের পতাকা বহন করে চলেছে। গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ, অসাম্প্রদায়িকতা ও মুক্তবুদ্ধিচর্চার ক্ষেত্রে কালের কণ্ঠ তার স্বকীয় বৈশিষ্ট্য সমুজ্জ্বল রেখেছে। গণমানুষের কথা বলে, সমাজ ও দেশের সার্বিক কল্যাণ চিন্তার প্রতিফলন ঘটিয়েছে। যে কারণে পেয়েছে মানুষের অকল্পনীয় ভালোবাসা ও সমর্থন। যার ফলে বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির সংকটের মধ্যেও রয়েছে কালের কণ্ঠের নির্বিঘ্ন পথচলা।

অর্থসূচক/কেএসআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...