বিদায়ী সপ্তাহে গড় লেনদেন বেড়েছে ২৮.৯৯%

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ২০২০ সালের বিদায়ী সপ্তাহে মূল্য সূচক ও লেনদেন দুটোই বেড়েছে। আলোচ্য সপ্তাহে ডিএসইতে গড় লেনদেন বেড়েছে ২৮.৯৯ শতাংশ। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচকও লেনদেন দুটোই বেড়েছে।

ডিএসই ও সিএসইর সাপ্তাহিক বাজার পরযালোচনা করলে এ তথ্য পাওয়া যায়।

আলোচ্য সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৪ কর্মদিবস লেনদেন হয়েছে। এই সময়ে ডিএসইতে প্রতিদিন গড়ে এক হাজার ৪৫০ কোটি ৮৬ লাখ ৫৫ হাজার ৯৭৭ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে গড় লেনদেন ছিল এক হাজার ১২৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকার। এই হিসাবে ডিএসইতে গড় লেনদেন বেড়েছে ৩২৬ কোটি ১১ লাখ ৫৫ হাজার টাকার বা ২৮.৯৯ শতাংশ।

সদ্য শেষ হওয়া সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণও বেড়েছে। আলোচ্য সপ্তাহে ডিএসইতে ৫ হাজার ৮০৩ কোটি ৪৬ লাখ ২৩ হাজার  টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৫ হাজার ৬২৩ কোটি ৭৫ লাখ  টাকার শেয়ার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১৭৯ কোটি ৭১ লাখ ২২ হাজার  টাকার বা ৩ দশমিক ২০ শতাংশ।

সপ্তাহ শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স এর অবস্থান দাঁড়ায় ৫ হাজার ৪০২ দশমিক ০৭ পয়েন্ট। সপ্তাহের শুরুতে সূচকটির অবস্থান ছিল ৫ হাজার ২১৮ দশমিক ৩৭ পয়েন্টে। সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক বেড়েছে ১৮৩  দশমিক ৭০ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ৫২ শতাংশ।

ডিএসইর সেরা ৩০ কোম্পানির সূচক ডিএসই-৩০ এক সপ্তাহের ব্যবধানে ১ হাজার ৮৭৬ দশমিক ৭৪ পয়েন্ট থেকে ১ হাজার ৯৬৩ দশমিক ৯৬ পয়েন্টে উঠে আসে।

আর ডিএসই শরীয়াহ সূচক ডিএসইএস এক হাজার ২০৩.৬৭ পয়েন্ট থেকে বেড়ে হয়েছে এক হাজার ২৪২ দশমিক ১১ পয়েন্ট।

আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে ৩৬৮টি কোম্পানির শেয়ার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে দাম বেড়েছে ২২৯টির কোম্পানির। আর   ৭৮টি কোম্পানির শেয়ারের দাম কমেছে। এ সময়ে ৫৮টি কোম্পানির শেয়ারের দাম ছিল অপরিবর্তিত।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহের ব্যবধানে ২২৯ কোটি ৪৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছ। আলোচ্য সময়ে সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ৪.০২ শতাংশ।

অর্থসূচক/এসএ/

 

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...