‘হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও বিএনপিকে খুঁজে পাওয়া যায় না’

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
347
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের/ফাইল ছবি

রাজপথের রাজনীতিতে বিএনপিকে এখন হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যায় না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, বিএনপির রাজনীতি এখন ফেসবুক স্ট্যাটাস ও গণমাধ্যমেই সীমাবদ্ধ। বিএনপি আমাদের শক্র নয়। আমরা তাদের নেতিবাচক রাজনীতির বিরোধিতা করি।

আজ শনিবার (৩১ অক্টোবর) সকালে ওবায়দুল কাদের নোয়াখালীতে চৌমুহনী পৌরসভার উদ্যোগে নবনির্মিত পৌরপার্ক ও টার্মিনাল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও অর্জনের কথা বললেই বিএনপির গাত্রদাহ হয় উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ কখনোই বিএনপির বিরুদ্ধে নয়, তাদের নেতিবাচক ও অপরাজনীতির বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ।

তিনি বলেন, ৭৫ এর খুনী ও খুনের মদদদাতা, গ্রেনেড হামলার খুনের মাস্টারমাইন্ড ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তি বগলে নিয়ে যারা দেশের রাজনীতিকে বিষাক্ত করেছে তাদের কাছে শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির কথা শুনতে ভালো না লাগাই স্বাভাবিক। শেখ হাসিনার উন্নয়নের কথা শুনলে ‘হাওয়া ভবন তন্ত্রের’ কুশীলবদের গাত্রদাহ তো হবেই।

এ সময় নোয়াখালীর সাম্প্রতিক ঘটনা সম্পর্কে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, গুটিকয়েক অপরাধীর জন্য সরকারের উন্নয়ন অর্জন ম্লান হতে পারে না।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বিএনপির মহাসচিব একজন সজ্জন মানুষ। তাকে অন্ধকারে রেখে পুতুল নাচানো হয়। তিনি নির্বাচিত হওয়ার পরও তাকে সংসদে যেতে দেওয়া হয়নি। হঠকারিতা বাদ দিয়ে আসুন গণতন্ত্রের ভাষায় কথা বলি। আওয়ামী লীগ চিরদিন ক্ষমতায় থাকবে, তা আমরা বলি না। তবে জনগণের প্রতি আমাদের আস্থা আছে।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সন্ত্রাসী ও নারী নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। শেখ হাসিনার সরকার গরিবের কথা, দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির কথা বললে আপনাদের গাত্রদাহ হয়। বর্তমান সরকার স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে শহর ও গ্রামকে কাছাকাছি এনে প্রতিটা গ্রামকে শহরে রুপান্তরিত করছে।

এ সময় ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- নোয়াখালী জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খাঁন এবং পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন। একই সময় ঢাকা থেকে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় অংশ গ্রহণ করেন বাংলাদেশ নিউনিসিপাল ডেভেলপমেন্ট ফান্ড (বিএমডিএফ) ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ হাসিনুর রহমান।

অর্থসূচক/কেএসআর