মোদীর আবেদনে পুতিনের সম্মতি

দুইদিনের সফরে রাশিয়া গেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সোমবার রাতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে তার নৈশভোজ ছিল। সেখানে তৃতীয়বার ভারতের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য় নরেন্দ্র মোদীকে তিনি অভিনন্দন জানিয়েছেন। ওই নৈশভোজেই ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে একটি আবেদন জানান মোদী।

তিনি বলেন, রাশিয়ায় যে ভারতীয়রা আছেন, বাধ্য হয়েই তাদের অনেককে যুদ্ধে অংশ নিতে হয়েছে। পুতিন যেন যুদ্ধ থেকে ভারতীয়দের অব্য়াহতি দেন। সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, নৈশভোজেই পুতিন মোদীর এই আবেদনে সম্মতি জানিয়েছেন।

২০২২ সালে ইউক্রেন আক্রমণ করে রাশিয়া। এরপর লাগাতার সেই যুদ্ধ চলছে। কর্মসূত্রে বহু ভারতীয় রাশিয়ায় বসবাস করেন। মোদীর অভিযোগ, এমন বহু ভারতীয়কে বাধ্য হয়ে রাশিয়ার সেনায় যোগ দিতে হয়েছে। লড়াইয়ে এখনো পর্যন্ত দুইজন ভারতীয়ের মৃত্য়ুর খবরও মিলেছে।

ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্র ডিডাব্লিউকে জানিয়েছে, ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর বহু ভারতীয় রাশিয়ায় আটকে পড়েছেন। তারা বড় বেতনের কাজের আশায় রাশিয়ায় গেছিলেন। এখন যুদ্ধে অংশ নিতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। মোদী ওই সমস্ত ভারতীয় যাতে দেশে ফিরে আসতে পারেন, সেই আবেদন জানিয়েছেন। পুতিন আবেদনে সাড়া দিয়েছেন। ভারতীয়দের সেনা বাহিনী থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি তারা যাতে দেশে ফিরে যেতে পারেন, সেই ব্য়বস্থা করা হবে বলেও জানিয়েছেন পুতিন।

ইউক্রেন যুদ্ধে ইউরোপ এবং আমেরিকা রাশিয়া-বিরোধী মঞ্চ তৈরি করলেও ভারত কোনোপক্ষেই যোগ দেয়নি। তারা এখনো পর্যন্ত জাতিসংঘে এই বিষয়ে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করছে। শুধু তা-ই নয়, রাশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্কও অটুট রেখেছে ভারত। রাশিয়া থেকে তেল কিনছে মোদীর সরকার। যা নিয়ে আমেরিকা এবং ইউরোপের চাপের মুখেও পড়তে হয়েছে ভারতকে।

এই পরিস্থিতিতে রাশিয়াও ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে। মোদীর রাশিয়া সফরও এই পরিস্থিতিতে গুরুত্বপূর্ণ। রাশিয়া থেকে অস্ট্রিয়ায় যাবেন মোদী। ৪১ বছর পর কোনো ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী অস্ট্রিয়ায় যাবেন। সূত্র: ডিডাব্লিউ, পিটিআই, এএনআই

অর্থসূচক/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.