সপ্তম বছরে পা রেখেছে কোচ কাঞ্চন একাডেমি

দেশে ১০ লাখ উদ্যোক্তা তৈরি আর কোটি মানুষের মাঝে হ্যাপিনেস ছড়িয়ে দেয়ার প্রত্যয়ে গড়ে উঠা প্রতিষ্ঠান ‘কোচ কাঞ্চন একাডেমি’। সাফল্যের সঙ্গে ছয় বছর পার করে সপ্তম বর্ষে পা রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি।

এ উপলক্ষ্যে রবিবার (৩০ জুন) রাজধানীর আলোকি কনভেনশন সেন্টারে “অন করি হ্যাপিনেস, ভাল রাখি বাংলাদেশ” শীর্ষক এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের নিয়ে কেক কেটে হ্যাপিনেস সেলিব্রেশন শুরু করেন প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার মুহাম্মদ ইলিয়াস কাঞ্চন, যিনি কোচ কাঞ্চন নামেই সর্বমহলে পরিচিত।

এসময় টেন মিনিটস স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিক, ক্যারিয়ার এন্ড প্রফেশনাল ট্রেইনার গোলাম সামদানি ডন, লেখক মার্ক অনুপম মল্লিক, সেলস লিডারশীপ ট্রেইনার ইউসুফ ইফতি, ক্যারিয়ার কোচ ট্রেইনিং সলিউশনসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জামাল উদ্দিন জেমি, বিক্রয় প্রশিক্ষক রাজিব আহমেদ, পাবলিক স্পিকার সোলাইমান আহমেদ জিসান, কিডস টাইমের প্রতিষ্ঠাতা ওয়ালিউল্লাহ ভূঁইয়া, ভার্চুয়াল বিজনেস গ্রুপ ‘কওমি উদ্যোক্তা’র অ্যাডমিন মাওলানা রোকন রাইয়ান, ইন্সপায়ার বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ইমরান ফাহাদসহ ইন্ড্রাস্ট্রির অন্যান্য লিডার ও বিজনেস আইকনরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা কোচ কাঞ্চনের হ্যাপিনেস কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং উত্তরোত্তর উৎকর্ষ ও সাফল্য কামনা করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে গোলাম সামদানি ডন বলেন, “আমরা যখন নিজেদের অনেক সমস্যার সমাধান নিয়ে ব্যস্ত কোচ কাঞ্চন তখন সমাজে হ্যাপিনেস ছড়াতে ব্যস্ত। আর এই সাহসটা সবার মধ্যে থাকেনা। আশা করছি, কোচ কাঞ্চনের এই কার্যক্রম সামনের দিনে আরও বড় পরিসরে পৌঁছাবে”।

লেখক মার্ক অনুপম মল্লিক বলেন, “কোচ কাঞ্চন এমন একজন মানুষ, যার মধ্যে জানার এবং শেখার প্রচন্ড ক্ষুধা আছে এবং মজার বিষয় হচ্ছে, সেই ক্ষুধা তিনি অন্য সবার মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছেন, শেখার আগ্রহ বাড়াচ্ছেন। আমি বিশ্বাস করি, এই যাত্রায় তাঁর সাফল্য সুনিশ্চিত”।

অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যে, “আগামী এক বছরে ১০ লাখ উদ্যোক্তাকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণের ঘোষণা দেন কোচ কাঞ্চন। তিনি বলেন, “আমরা একটি হ্যাপিয়ার, হেলদিয়ার ও বেটার ওয়ার্ল্ড গড়ার মিশনে বদ্ধপরিকর। দেশে ১০ লক্ষ দক্ষ উদ্যোক্তা গড়া, কোটি মানুষের মাঝে হ্যাপিনেস ছড়িয়ে দেয়া সেই মিশনেরই অংশ। কোচ কাঞ্চন একাডেমি নামের একটি বিন্দু ৭ বছরে পা দিয়ে, আজ এক সিন্ধুর নাম। এটা সম্ভব হয়েছে শুধু মানুষের ভালবাসা,অনুপ্রেরণা ও সবসময় পাশে থাকায়। ৭-এ পা দিয়ে আমরা আরও সমৃদ্ধ, আরও পরিপূর্ণ, আরও বেশি দায়িত্ব কাঁধে নেয়ার জন্য প্রস্তুত। সামনের দিনেও উদ্যোক্তাসহ সকলের জন্য আরও ভালো কিছু নিয়ে হাজির হবো ইনশাআল্লাহ”।

উল্লেখ্য, বর্তমান সময়ে মানসিক অস্থিরতা দূর করে নিজেকে খুশি রাখার কৌশল ছড়িয়ে দেয়ার যাত্রায় অনন্য এক নাম কোচ কাঞ্চন। তিনি একাধারে লেখক, উদ্যোক্তা ও হ্যাপিনেস কোচ। তিনি জীবনের কথা বলেন, জীবনকে নিয়ে ভাবার কথা বলেন। পাশাপাশি অর্গানিক ব্র্যান্ড ন্যাচারালসের প্রতিষ্ঠাতাও মুহাম্মদ ইলিয়াস কাঞ্চন। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে তিনি ব্যবসা সম্প্রসারণ করেছেন। বাংলাদেশি গ্লোবাল ব্র্যান্ড গড়ার লক্ষ্যে ছুটে চলছেন দেশ-বিদেশে।

২০১৮ সালে যাত্রা শুরুর পর এখন পর্যন্ত কোচ কাঞ্চন একাডেমি ৫০ হাজার ব্যক্তি কিংবা উদ্যোক্তাকে ব্যক্তি পর্যায়ে হ্যাপিনেস, ব্রেইন মাস্টারিং এবং বিজনেস গ্রোথ ও মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজিসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দিয়েছে। এই প্রশিক্ষণ কঠিন সময়কে সুখী মুহুর্তে রূপান্তরিত করা, সুপার চার্জিং পদ্ধতিতে ব্যবসার উন্নতি সাধন করা এবং উদ্যোক্তাদের আট থেকে নয় অঙ্কের ভবিষ্যতের ব্যবসা গড়ে তুলতে সহযোগিতা করেছে। কোচ কাঞ্চনের বই পড়েছেন ৫০ হাজারেরও বেশি পাঠক।

 

অর্থসূচক/

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.