৪ বছর পর ইরান থেকে তেল আমদানি তুরস্কের

ইরান থেকে প্রতিবেশী দেশ তুরস্ক আবারও তেল আমদানি শুরু করেছে। গত মার্চ মাসে তুরস্ক ইরান থেকে ৫৭৬ মেট্রিক টন এবং এপ্রিল মাসে ৪৮৫ মেট্রিক টন তেল আমদানি করেছে বলে খবর দিয়েছে ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরনা।

দেশটির মেহের নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মার্কিন সরকার ইরানের বিরুদ্ধে যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল তাতে সহযোগিতা করে তুরস্ক গত চার বছর ধরে ইরান থেকে তেল আমদানি বন্ধ রেখেছিল। তেল আমদানি বন্ধ করার আগে ২০২০ সালের আগস্ট মাসে তুরস্ক ইরান থেকে সর্বশেষ তেলের চালান গ্রহণ করে। এরপর তুরস্ক মার্কিন চাপের মুখে নতিস্বীকার করে ইরান থেকে তেল আমদানি বন্ধ করে দেয়।

ইরান থেকে নতুন করে তুরস্কের তেল আমদানির ঘটনা এই ইঙ্গিত দেয় যে, আরও বেশি দেশ মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ইরান থেকে তেল নিচ্ছে যার অর্থ দাঁড়াচ্ছে- এসব দেশ মার্কিন নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নের সহযোগিতা বন্ধ করে দিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশ বুলগেরিয়া এবং পোল্যান্ড চলতি বছর ইরান থেকে তেল আমদানি করেছে। বুলগেরিয়া গত বছরের তুলনায় চলতি বছর ইরান থেকে তেল আমদানি শতকরা ১১৩ ভাগ বাড়িয়েছে। গত বছরের প্রথম তিন মাসে বুলগেরিয়া ইরান থেকে ৩১৪ মেট্রিক টন তেল আমদানি করেছিল।

চলতি বছরের মার্চ মাসে পোল্যান্ড ইরান থেকে ১৯ মেট্রিক টন তেল আমদানি করেছে। গত দুই বছরের মধ্যে প্রথম দেশটি ইরান থেকে তেল আমদানি করল।

এছাড়া ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য-প্রার্থী জর্জিয়া চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে ইরান থেকে ৫৪৪ মেট্রিক টন তেল আমদানি করেছে। অবশ্য দেশটি গত বছরের একই সময়ে ৯৭৪ মেট্রিক টন তেল আমদানি করেছিল।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউরোপের আরও বেশি দেশ মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ইরান থেকে তেল আমদানি করতে আগ্রহী।

প্রসঙ্গত, ইরান বর্তমানে সবচেয়ে বেশি তেল এশিয়ার বাজারে বিক্রি করছে। ইরানের দৈনিক তেল উৎপাদন ১৬ লাখ ব্যারেলে দাঁড়িয়েছে।

অর্থসূচক/এমএস

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.