রেকর্ড বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত দিল্লি, মৃত্যু ১১

চলতি বর্ষায় প্রচুর বৃষ্টিতে রেকর্ড করেছে ভারত। এই রেকর্ড বৃষ্টিতে ভারতের রাজধানী দিল্লির বেশির ভাগ নিচু জায়গা ডুবে গেছে। বৃষ্টির পানিতে ডুবে শিশুসহ এখন পর্যন্ত ১১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

রবিবার ও সোমবার আরও বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকায় কমলা সতর্কতা জারি করেছে ভারতীয় আবহাওয়া দপ্তর। ভারতের আবহাওয়া দপ্তরের (আইএমডি) রঙ-ভিত্তিক সতর্কতা পদ্ধতি অনুযায়ী অরেঞ্জ অ্যালার্ট বা কমলা সতর্কতা লোকজনকে ভারি বৃষ্টির জন্য প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানায়।

শুক্রবার দিল্লিতে রেকর্ড বৃষ্টিপাত হয়েছে। এদিন নগরীতে ২২৮ দশমিক ১ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এটি ১৯৩৬ সালের পর থেকে জুন মাসের একদিনে হওয়া সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত।

সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, প্রবল বৃষ্টিতে থমকে গিয়েছে রাজধানীর জীবনযাত্রা। একাধিক রাস্তা দুই থেকে তিন ফুট পর্যন্ত পানির নিচে। আন্ডারপাসগুলির অবস্থাও শোচনীয়। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ আন্ডারপাস প্রগতি ময়দান টানেল প্লাবিত হওয়ার পর বন্ধ করে দেওয়া হয়। শনিবারও এ আন্ডারপাসটি বন্ধ ছিল। জলাবদ্ধতার কারণে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক যানজট ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়।

এই বৃষ্টির ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার আগেই দিল্লীবাসীকে আবারও ভারি বৃষ্টির জন্য প্রস্তুত থাকতে বলেছে আবহাওয়া দপ্তর। এছাড়া মৌসুমি বায়ুর কারণে উত্তর ভারতের কয়েকটি অংশে ভারী বৃষ্টি হতে পারে বলে সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে আইএমডির আবহাওয়া বিজ্ঞানী সোমা সেন।

ভারতের আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, মৌসুমি বায়ুর প্রভাব চলাকালে দিল্লিতে গড়ে প্রায় ৬৫০ মিলিমিটারের মতো বৃষ্টিপাত হয়, কিন্তু এবার প্রথম একদিনেই এর এক তৃতীয়াংশ বৃষ্টি হয়ে গেছে।

এমন পরিস্থিতিতে আবারও ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাসে দিল্লির বাসিন্দারা উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছেন। পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার ও আসন্ন বৃষ্টির জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়ার চেষ্টা করেছে নগর কর্তৃপক্ষ।

অর্থসূচক/

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.