ভারতে জোট সরকার পুঁজিবাজারের জন্য কতটা খারাপ?

ভারতে বিভিন্ন সময়ে জোট সরকার ক্ষমতায় বসেছে। জোট সরকারের সময়গুলোতে ভারতের অর্থনীতি ভালো সময়ও যেমন পার করেছে, আবার অনেক খারাপ সময়ও পার করতে হয়েছে। একটি অর্থনীতির স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে পুঁজিবাজারের ভূমিকা অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ। ভারতের পুঁজিবাজার বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, জোট সরকারের আমলে ভারতের পুঁজিবাজার সবচেয়ে ভালো পারফরম্যান্স ছিল প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সময়ে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বিজনেস স্টান্ডার্ডের এক প্রতিবেদনে দেশটির জোট সরকারগুলোর আমলের পুঁজিবাজার নিয়ে এমন তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ২০০৪ সালের ২২ মে থেকে ২০০৯ সালের ২২ মে পর্যন্ত জোট সরকারের অধীনে দায়িত্ব পালন করেন। আলোচ্য এই সময়ে ভারতের পুঁজিবাজার বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জের (বিএসই) সূচক সেনসেক্সের ১৭৯ দশমিক ৯০ শতাংশ উত্থান হয়। অর্থাৎ এই সময়ের মধ্যেই ভারতের পুঁজিবাজার সবচেয়ে ভালো পারফরম্যান্স করেছিলো।

আবারও ২০০৯ সালের ২২ জুলাই ক্ষমতায় বসেন মনমোহন সিং। এরপর তিনি দায়িত্ব পালন করেন ২০১৪ সালের ২৬ জুলাই পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যে বিএসই সেনসেক্স বেড়েছিলো ৭৮ শতাংশ। পাশাপাশি নিফটি বেড়েছিলো ৭৩ দশমিক ৬ শতাংশ।

অপরদিকে ২০১৪ ও ২০১৯ সালে টানা দুইবার ক্ষমতায় ছিলো বিজেপি সমর্থিত জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট (এনডিএ)। এসময় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন নরেন্দ্র মোদী। মোদীর টানা দুই মেয়াদে সেনসেক্স বেড়েছে মাত্র ৬১ শতাংশ।

এর আগে ১৯৮৯ সাল থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত ভারতের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন বিশ্বনাথ প্রতাপ সিং। তার সময়ে সেনসেক্স বেড়েছিলো ৯৫ দশমিক ৬ শতাংশ। এরপরই প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন চন্দ্র শেখর। তিনি ১৯৯১ সালের ২১ আগস্ট পর্যন্ত সময় দায়িত্বে ছিলেন, এসময় সেনসেক্স কমেছিলো ২ দশমিক ২ শতাংশ।

এরপর ১৯৯১ সাল থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত সময়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন নারসিমহা রাও। তার আমলে সেনসেক্সে বেড়েছিলো ১৮০ দশমিক ৮ শতাংশ। এরপর মাত্র ১৫ দিন অর্থাৎ ১৯৯৬ সালের ১৬ জুন থেকে ১ জুলাই পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেছিলেন অটল বিহারী বাজপেয়ী। এসময় ভারতের পুঁজিবাজারের সেনসেক্স সূচকের পতন হয় ২ দশমিক ৬ শতাংশ। তবে অটল বিহারী বাজপেয়ী আবারও ক্ষমতায় বসেন ১৯৯৮ সালে। এই সময় থেকে তার পরবর্তী ছয় বছর মেয়াদে সেনসেক্স বেড়েছে ২৯ দশমিক ৯ শতাংশ।

জোট সরকার কখন তৈরি হয়?

জোট সরকার এমন একটি সরকার যেখানে রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাহী বিভাগের ক্ষমতা ভাগাভাগি ব্যবস্থায় প্রবেশ করে। জোট সরকার সাধারণত তখনই ঘটে যখন কোনো একক দল নির্বাচনের পর নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করতে পারে না ।

ভারতে জোট সরকারের ইতিহাস কী?

ভারতে প্রথম জোট সরকার ১৯৭৭ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোরারজি দেশাইয়ের সাথে গঠিত হয়েছিল। ১৯৮০ এবং ১৯৯০ এর যুগে ভারতে ভিপি সিং, চন্দ্র শেখর, ইন্দর কুমার গুজারাল এবং এইচডি দেবগৌড়ার সাথে বিভিন্ন জোট সরকার সময়মত বিভিন্ন সময়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা গ্রহণ করেছিল।

আজ সকাল থেকেই ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ভোট গণনা শুরু হয়েছে। এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, নরেন্দ্র মোদীর জোট এনডিএ ‘ইন্ডিয়া জোটের’ চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। তবে এবার মোদীর বিপেজির একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার সম্ভাবনা একেবারে ক্ষীণ।

আর এমন দিনে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে ভারতের পুঁজিবাজারে। এমনকি চার বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ দর পতনের সাক্ষী হলো ভারতের দুই পুঁজিবাজার বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জ (বিএসই) এবং ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ (এসএসই)।

লেনদেনের শুরু থেকেই পতন হতে শুরু করে বিএসই সেনসেক্স সূচক। একপর্যায়ে সকাল সোয়া ১১টা নাগাদ সূচকটি ৬ হাজার ২৩৪ পয়েন্ট কমে ৭৩ হাজারের নিচে নেমে আসে। তবে পরবর্তী সময়ে সূচক কিছুটা পুনরুদ্ধার হয়ে ৫ দশমিক ৭৪ শতাংশ বা ৪ হাজার ৩৮৯ পয়েন্ট হারিয়ে ৭২ হাজার ৭৯ পয়েন্টে লেনদেন শেষ করে।

অন্যদিকে এনএসইর মূল্যসূচক ‘নিফটি৫০’ ও পতনের মুখে পড়ে । লেনদেনের প্রথম আড়াই ঘণ্টায় সূচকটি প্রায় ১ হাজার ৯৮২ পয়েন্ট হারিয়ে দিনের সর্বনিম্ন অবস্থান ২১ হাজার ২৮১ পয়েন্টে চলে যায়। পরবর্তি সময়ে ধ্বস কিছুটা সামলে উঠলেও ৫ দশমিক ৯৩ শতাংশ বা ১ হাজার ৩৭৯ পয়েন্ট পতনে লেনদেন শেষ করে পুঁজিবাজারটি। লেনদেন শেষে সূচক নিফটি৫০ দাঁড়ায় ২১ হাজার ৮৮৪ পয়েন্টে।

অর্থসূচক/এমএইচ

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.