কেস খেলবা… আসো, যেটা খেলার মন চায় সেটাই খেলো: নিপুণকে ডিপজল

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি নির্বাচন সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে মিশা সওদাগর সভাপতি ও মনোয়ার হোসেন ডিপজল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এই ফলাফল স্থগিত চেয়ে আদালতে রিট করেছেন পরাজিত সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তার।

বুধবার বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চে আইনজীবী অ্যাডভোকেট পলাশ চন্দ্র রায়ের মাধ্যমে রিট করেন এ নায়িকা।

অভিনেত্রী নিপুণের দায়ের করা রিট প্রসঙ্গে কথা বলেছেন সদ্য নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ডিপজল। নিপুনকে উদ্দেশ্য তিনি বলেন, ‘কেস খেলবা, আসো। যেটা খেলার মন চায় সেটাই খেলো। আমরা ভদ্রতা ও নম্রতা চাই। আমরা চাই কীভাবে চলচ্চিত্র এগিয়ে নেওয়া যায়, সেদিকে কাজ করার। আমরা কোনো ঝামেলা চাই না।’

গত ১৯ এপ্রিল বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন (বিএফডিসি) প্রাঙ্গণে ২০২৪-২৫ দ্বিবার্ষিক মেয়াদের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এতে মিশা-ডিপজল প্যানেল জয়লাভ করে। ফল ঘোষণার পর এই প্যানেলকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী নিপুণ। কিন্তু এর প্রায় একমাস পর গত ১৫ মে আদালতে রিট দায়ের করেন তিনি। তার দাবি নির্বাচনে অনেক অনিয়ম ও কারচুপির ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করে সংগঠনটির সদ্য নির্বাচিত কমিটি। সেখানেই এসব কথা বলেন খল-অভিনেতা ডিপজল।

এ সময় আগের এক সাক্ষাৎকারে তাকে নিপুণের ‘অশিক্ষিত’ বলার ব্যাপারে বলেন, সে তো বাপকেই অস্বীকার করে। রক্তের সমস্যা না হলে কেউ এমন বলতে পারে না। কেননা ও (নিপুণ) যাকে দিয়ে এই চলচ্চিত্র চিনেছে, তাকেই ভুলে গেছে, অস্বীকার করছে।

এদিকে নিপুণের আদালতে যাওয়ায় বিষয়টি আইনিভাবে মোকাবিলা করতে প্রস্তুতি নিচ্ছে মিশা-ডিপজল প্যানেল।

পাশাপাশি আগের মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ পরিষদের সময় জায়েদ খানসহ বাতিল হওয়া ১০৩ ভোটারের সদস্য পদ ফিরিয়ে দেওয়ার পক্ষে একমত বর্তমান কমিটির অধিকাংশ সদস্য।

অর্থসূচক/এমএস

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.