ইউক্রেনের হামলা রাশিয়ায়, নিহত ১৫

রাশিয়ার উদ্দেশ্যে ইউক্রেনের ছোড়া একটি ক্ষেপণাস্ত্র রাশিয়া গুলি করে ফেলে দেওয়ার পর সেটির একটি টুকরোর আঘাতে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকের অংশবিশেষ ধসে পড়েছে। এতে অন্তত ১৫ জন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন রুশ কর্মকর্তারা।

রোববার (১২ মে) রাশিয়ার বেলগোরোদ অঞ্চলে ঘটনাটি ঘটেছে। সোমবার (১৩ মে) ভোররাতে রাশিয়ার জরুরি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ ঘটনায় ১৫ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া ২০ জন আহত হয়েছে এবং একটি শিশুসহ বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছেন। খবর রয়টার্সের।

রাশিয়ার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ইউক্রেন এদিন ব্যাপক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে। এই হামলাটি সীমান্তের নিকটবর্তী বেলগোরোদ অঞ্চলে ইউক্রেনের চালানো অন্যতম প্রাণঘাতী হামলা।

ঘটনাস্থল থেকে আসা ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, ওই ভবনের অন্তত ১০টি তলা ধসে পড়ছে। পরে জরুরি বিভাগের কর্মীরা যখন জীবিতদের খোঁজে ধ্বংসস্তূপের মধ্যে তল্লাশি চালাচ্ছিলেন, তখন ভবনের ছাদটি ধসে পড়ে। লোকজনকে প্রাণ বাঁচাতে ছুটে সরে যেতে দেখা যায়, আর তাদের পেছনে কংক্রিটের ভাঙা টুকরো পড়তে থাকে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ০৮৪০ জিএমটিতে অন্তত ১২টি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে হামলাটি চালানো হয়। এটিকে ‘আবাসিক এলাকায় চালানো সন্ত্রাসী হামলা’ বলে অভিহিত করেছে তারা।

জরুরি বিভাগের কর্মীরা যখন ধ্বংসস্তূপের মধ্যে তল্লাশি চালাচ্ছিলেন তখনো রকেট হামলার সাইরেন বাজছিল।

ইউক্রেইন ও রাশিয়া— উভয় দাবি করে আসছে তারা বেসামরিকদের লক্ষ্যস্থল করে না।

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়া প্রতিবেশী ইউক্রেনে আক্রমণ শুরু করে। তারপর থেকে দুই বছরের বেশি সময় ধরে চলা যুদ্ধে হাজার হাজার মানুষ নিহত, লাখ লাখ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

অর্থসূচক/

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.