আমার ও দেশের ওপর বালা-মুসিবত এসেছে: ড. মুহাম্মদ ইউনূস

গ্রামীণ টেলিকমের কর্মীদের লভ্যাংশের ২৫ কোটি ২২ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র গ্রহণের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস। তিনি বলেছেন, অনেকদিন ধরে আমার ও দেশের ওপর বালা-মুসিবত এসেছে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) অর্থ আত্মসাতের মামলায় হাজিরা দিতে ড. ইউনূসসহ সাতজন ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে হাজির হন। দুপুর পৌনে ১টায় আদালতে পৌঁছালে মামলার প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা বলেন তিনি।

মামলার বিষয়ে ড. ইউনূস বলেন, অনেক দিন ধরে আমার ওপর বালা-মুসিবত এসেছে। দেশের ওপরও এসেছে। এতে দেশের মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। এ থেকে রেহাই না পেলে মুক্তি নেই।

শান্তিতে নোবেলজয়ী এই অর্থনীতিবিদ বলেন, দেশ-বিদেশের মানুষ আমাদের বিশ্বাস করে। আমরা মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করি। সারাবিশ্ব বাংলাদেশ থেকে শিখতে চায়। তবে দেশের মানুষ যেভাবে বাঁচতে চায়, সেভাবে পারছে না। মানুষ আইনের শাসন পাচ্ছে না।

এদিন কর্মীদের লভ্যাংশের ২৫ কোটি ২২ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ করেছেন আদালত। একই সঙ্গে মামলাটি বিচারের জন্য ঢাকার বিশেষ জজ-৪ নম্বর আদালতে বদলির আদেশ দেন। পরে আগামী ২ মে মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করেন আদালত।

এর আগে গত ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান।

গত ৩ মার্চ ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চান ড. ইউনূসসহ আট জন। পরে আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

অর্থসূচক/এমএস

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.