ইরানি কনস্যুলেটে ইসরায়েলি হামলা, কমান্ডারসহ নিহত ৭

সিরিয়ায় অবস্থিত ইরানি কনস্যুলেট ভবনে ভয়াবহ হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। এ ঘটনায় সাতজন নিহত হয়েছেন; যাদের মধ্যে ইরানের বিপ্লবী গার্ডের (আইআরজিসি) একজন কমান্ডারও রয়েছেন।

সোমবার (১ এপ্রিল) দামেস্কের মাজেহতে অবস্থিত কনস্যুলেট ভবনের এনেক্স ভবনে হামলা করে ইসরায়েল। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তাসংস্থা সানার বরাত দিয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

এ ছাড়া আইআরজিসিও এক বিবৃতিতে হামলার কথা জানায়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সোমবার দামেস্কে ইরানি দূতাবাসের কনস্যুলার বিভাগের একটি আবাসিক ভবনে হামলায় সিরিয়া ও লেবাননে আইআরজিসির কুদস ফোর্সের সিনিয়র কমান্ডার জেনারেল মোহাম্মদ রেজা জাহেদি নিহত হয়েছেন। এছাড়াও তার ডেপুটি জেনারেল হাদি হাজ রাহিমি এবং আরও পাঁচজন সামরিক সদস্য এই হামলায় নিহত হয়েছেন।

নিহত অন্য পাঁচজন হলেন হোসেইন আমানুল্লাহি, সাইয়্যেদ মাহদি জালালাতি, মোহসেন সাদাকাত, আলী আগা বাবাই এবং সৈয়দ আলী সালেহি রোজবাহানি। সকলেই আইআরজিসির কর্মকর্তা। স্থানান্তর, অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া এবং দাফন পরবর্তী তারিখে ঘোষণা করা হবে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ইসরায়েল ফিলিস্তিনি প্রতিরোধের (হামাস) বিরুদ্ধে তার অপূরণীয় পরাজয়ের পরে এই হামলা চালিয়েছে।

ইসরায়েলিদের চালানো হামলায় ইরানি কনস্যুলেটের সেই ভবনটি পুরোপুরি ধসে গেছে। হামলার পরপর ভবনটি থেকে ধোঁয়ার কুণ্ডলি বের হতে দেখা যায়। হামলার ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি ইহুদি প্রধান ‘দেশটি’।

সিরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ইসরায়েলি হামলায় ইরানের কনস্যলেট ভবনের ভেতর যারা ছিলেন তাদের সবাই আহত অথবা নিহত হয়েছেন। দেশটিতে নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূত হোসেন আকবারি ও তার পরিবারের কোনো সদস্য এ হামলার শিকার হননি। কেননা, তারা কনস্যুলেটের ভবনে সে সময় উপস্থিত ছিলেন না।

দেশটির বার্তাসংস্থা সানা নিউজ জানিয়েছে, ইসরায়েলি ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কোনোভাবে একটি ক্ষেপণাস্ত্র কনস্যুলেটের এনেক্স ভবনে আঘাত হানতে সমর্থ হয়।

গত সপ্তাহে সিরিয়ায় আরেকটি বড় হামলা চালিয়েছিল ইসরায়েল। ওই হামলায় ৫৩ জন নিহত হন। যার মধ্যে ৩৮ সিরীয় সেনা এবং হিজবুল্লাহর ৭ যোদ্ধা ছিলেন।

অর্থসূচক/এমএস

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.