ডেপুটি গভর্নর হলেন হাবিবুর রহমান ও খুরশীদ আলম

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. মো. হাবিবুর রহমান ও নির্বাহী পরিচালক মো. খুরশীদ আলম ডেপুটি গভর্নর (ডিজি) হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের এক আদেশে তাদের আগামী তিন বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, চলতি মাসের ২ ফেব্রুয়ারি একেএম সাজেদুর রহমান খান এবং ২৩ ফেব্রুয়ারি আবু ফরাহ মো. নাছেরের ডেপুটি গভর্নর হিসেবে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়। এরপর এ দুটি পদ খালি হয়। ওই দুই পদে ৩ বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়ার জন্য বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. খুরশীদ আলম ও প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. মো. হাবিবুর রহমানের নাম প্রস্তাব দেওয়া হয়। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিয়োগ সংক্রান্ত নথিতে সই করে আদেশ জারির জন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে পাঠান।

এর আগে ড. হাবিবুর রহমান বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার খিরাতলা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। হাবিবুর রহমান মিরাসানী পলিটেকনিক একাডেমি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ থেকে কৃতিত্বের সঙ্গে প্রথম বিভাগ পেয়ে যথাক্রমে এসএসসি ও এইচএসসি পাস করেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) থেকে অর্থনীতিতে প্রথম শ্রেণিতে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

ড. হাবিবুর রহমান ১৯৯০ সালে বাংলাদেশ ব্যাংকের গবেষণা বিভাগে সহকারী পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। বাংলাদেশ ব্যাংকে যোগদানের আগে তিনি বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানে উচ্চতর প্রশিক্ষণ নেন। পরে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (ইউএসএইড) বৃত্তির আওতায় যুক্তরাষ্ট্রের ইস্ট্রার্ন ও ওয়েস্ট্রার্ন মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রায়োগিক অর্থনীতিতে যথাক্রমে মাস্টার্স এবং পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।

হাবিবুর রহমান বাংলাদেশ ব্যাংকের গবেষণা বিভাগ, মানিটারি ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড টেকনিক্যাল ইউনিটে (বর্তমানে মানিটারি পলিসি বিভাগ) অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে কাজ করেছেন। পরে তিনি বিশ্ব ব্যাংকের ক্যাপাসিটি বিল্ডিং প্রজেক্টের আওতায় বাংলাদেশ ব্যাংকের পলিসি অ্যানালাইসিস ইউনিটে সিনিয়র রিসার্চ ইকোনমিস্ট হিসেবে নিয়োজিত হন। তিনি বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেনিং একাডেমিতে উপমহাব্যবস্থাপক এবং সর্বশেষ গভর্নর সচিবালয়ের পলিসি সাপোর্ট উইংয়ে মহাব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি বিশ্ব ব্যাংক, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ), এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকসহ (এডিবি) বহির্বিশ্বে বহুসংখ্যক আন্তর্জাতিক সম্মেলন, সভা-সেমিনার ও কর্মশালায় বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। বৈদেশিক প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে তিনি জাপান, রাশিয়া, সৌদি আরব, তুরস্ক, ভারত, দক্ষিণ কোরিয়াসহ ইউরোপ-আমেররের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ প্রদান করা হলো।

অন্যদিকে খুরশীদ আলম বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক-১ হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাণিজ্য অনুষদের স্নাতকোত্তর এবং পরে এমবিএ করেন। তিনি ১৯৮৮ সালে সহকারী পরিচালক পদে বাংলাদেশ ব্যাংকে যোগদান করেন। খুরশীদ আলম ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ, ব্যাংক পরিদর্শন বিভাগ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ, কৃষি ঋণ বিভাগ, পেমেন্ট সিস্টেমস্ ডিপার্টমেন্ট, ডিপার্টমেন্ট অব কারেন্সি ম্যানেজমেন্ট, ডিপার্টমেন্ট অব অফ-সাইট সুপারভিশন, এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস্ ডিপার্টমেন্ট, সচিব বিভাগসহ বিভিন্ন বিভাগে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।

এছাড়া তিনি দাপ্তরিক কাজে যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ইন্দোনেশিয়া, নেদারল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ করেছেন। এক মেয়ে ও এক ছেলে সন্তানের জনক খুরশীদ আলম ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

অর্থসূচক/এমএইচ/এমএস

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.