হোয়াইটওয়াশ নিউজিল্যান্ড

আগামী জুন-জুলাইয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। সেই বিশ্ব আসরের আগে নিজেদের প্রস্তুতি শেষ করেছে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ আগেই নিজেদের করে নিয়েছিল অজিরা। সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে ডিএলএস পদ্ধতিতে কিউইদের ২৭ রানে হারিয়ে হোয়াইটওয়াশ করেছে অস্ট্রেলিয়া।

বিশ্বকাপের আগে আর তাদের কোনো টি-টোয়েন্টি সিরিজ নেই। ফলে এটাই আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতির শেষ সুযোগ ছিল অজিদের সামনে। এই ম্যাচে টসে হেরে ব্যাটিং করতে নেমে তিনবার বৃষ্টি বাঁধায় পড়তে হয় অস্ট্রেলিয়াকে। ফলে তাদের ইনিংসের দৈর্ঘ্য নেমে আসে ১০.৪ ওভারে। তারা ৪ উইকেট হারিয়ে ১১৮ রান তুলতে পারে। ১০ ওভারে নিউজিল্যান্ডের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ১২৬ রান। এই লক্ষ্য পাড়ি দিতে পারেনি কিউইরা। তাদের ইনিংস থামে ৩ উইকেট হারিয়ে ৯৮ রানে।

দ্রুত রান তোলার চাপে ৩ ওভারের মধ্যে ২ উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। দলীয় ২৯ রানের মধ্যে উইল ইয়ং ও টিম সেইফার্টের উইকেট হারায় কিউইরা। একপ্রান্ত আগলে রাখলেও ১৩ রানের বেশি করতে পারেননি ওপেনার ফিন অ্যালেন। এরপর চার নম্বরে নেমে গ্লেন ফিলিপস ২৪ বলে ৪০ ও মার্ক চ্যাপম্যান ১৫ বলে ১৭ রানের অপরাজিত ইনিংস খেললেও তা জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে একটি করে উইকেট নেন ম্যাথু শর্ট, অ্যাডাম জাম্পা ও স্পেনসার জনসন।

এই ম্যাচে আগে ব্যাটিংয়ে নামা অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ওপেনিংয়ে নামেন স্টিভ স্মিথ ও ট্রাভিস হেড। স্মিথ ফেরেন মাত্র ৪ রান করে। ম্যাথু শর্টের ব্যাট থেকে আসে ১১ বলে ২৭ রানের ঝড়ো ইনিংস। এরপর ম্যাক্সওয়েল ৯ বলে ২০ রান তুললেও ইনিংস বড় করতে পারেননি। হেড ফিরেছেন ৩০ বলে ৩৩ রান করে। শেষদিকে জস ইংলিসের ৮ বলে ১৪ ও টিম ডেভিডের ৩ বলে ৮ রানের ইনিংসে ১১৮ রানের পুঁজি পায় অস্ট্রেলিয়া। কিউইদের হয়ে একটি করে উইকেট নেন অ্যাডাম মিলনে, বেন সিয়ার্স, মিচেল স্যান্টনার ও জশ ক্লার্কসন।

অর্থসূচক/এমআর/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.