প্রথমবারের মতো আয়োজিত হলো পাবলিক স্পিকিং মাস্টারমাইন্ড প্রতিযোগিতা

এনইউএসডিএফ বাংলাদেশ (NUSDF Bangladesh) কর্তৃক প্রথমবারের মত সমগ্র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজন করা হয় একটি বিশেষ ও চিত্তাকর্ষক প্রতিযোগিতা “পাবলিক স্পিকিং মাস্টারমাইন্ড”।

শনিবার (২৭ জানুয়ারি) ঢাকার ফার্মগেটের কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে দিনব্যপী একটি জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আয়োজিত হয়ে গেলো “পাবলিক স্পিকিং মাস্টারমাইন্ড” প্রতিযোগিতা।

অসাধারণ এই প্রতিযোগিতায় সারা দেশজুড়ে অংশগ্রহণ করেছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অসংখ্য শিক্ষার্থীরা। এদের মধ্যে সেরা ১০জন ফাইনালিস্টদের নিয়ে আয়োজিত হয়েছিল এই গ্র্যান্ড ফিনালে। ভিন্ন ধরনের এই আয়োজনে এনইউএসডিএফ বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার পাশাপাশি অংশগ্রহণকারীদের সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুত করতে আয়োজন করেছিল অত্যন্ত দক্ষ ও সুপরিচিত ট্রেইনার দ্বারা ৫টি বিশেষ পাবলিক স্পিকিং ওয়ার্কশপ।

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত দিয়ে শুরু হওয়া এই জমজমাট প্রতিযোগিতার অত্যন্ত দক্ষ ও সুপরিচিত বিচারক এবং উপদেষ্টা হিসেবে ছিলেন- ফেরদৌস বাপ্পি, বাংলাদেশী মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, ও টিভি উপস্থাপক; রাশেদ ইমাম, সাবেক বিতর্ককারী, সাবেক আরজে, ও সাবেক সংবাদ উপস্থাপক; নাহিদ আহসান, হেড অফ মার্কেটিং, এক্সিলেন্স বাংলাদেশ; এবং রাইসুল হক চৌধুরি, সিনিয়র সংবাদ উপস্থাপক, এনটিভি। আর সমগ্র এই আয়োজনের পাওয়ারড বাই স্পন্সর হিসেবে ছিলেন ব্রাইট স্কিলস।

দিনব্যাপী এই চমৎকার প্রতিযোগীতায় টপ ফাইনালিস্টদের সাথে লড়াই করে বিজয়ীর ট্রফি ও প্রাইজ মানি জিতেছেন মুক্তা আক্তার; প্রথম রানার-আপ হয়েছেন ফাতেমা জহুরা ইকরা; এবং দ্বিতীয় রানার-আপ হয়েছেন সাবিহা নাসির মিম। যারা শুধু নিজেদেরকেই প্রমাণ করেনি বরং প্রমাণ করেছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের। যেখানে দেশ সাক্ষী হয়েছে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আর কোনো অংশেই পিঁছিয়ে নয় বরং এগিয়ে আছে।

এই অসাধারণ প্রতিযোগিতা নিয়ে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট রিয়াজ হোসেন জানান, “জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যেই গঠিত হয়েছে এনইউএসডিএফ বাংলাদেশ। আর সেই লক্ষ্যকে এগিয়ে নিতেই অনুষ্ঠিত হয়েছে “পাবলিক স্পিকিং মাস্টারমাইন্ড” প্রতিযোগিতা। কেননা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য নিজেদের প্রমাণ করার এমন সুযোগ পাওয়া খুবই দুষ্কর। তাই আমাদের এই প্রতিযোগিতাটি শুধুমাত্র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্যই আয়োজন করা হয়েছে। এই আয়োজনে আগত সকল অংশগ্রহকারী শিক্ষার্থী ও সম্মানিত অতিথিদের আয়োজনটি সাফল্যমন্ডিত করার জন্য তাদের প্রানঢালা শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আমার বিশ্বাস, আগামী সময়গুলোতেও আমরা এভাবেই সারা দেশব্যপী জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে এমন অনেক আয়োজন অব্যাহত রাখব এবং উন্নত ক্যারিয়ার গড়ার অগ্রযাত্রায় সবসময় পাশে থাকবো”।

অর্থসূচক/ এইচএআই

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.