বিএনপি-জামায়াতকে নিষিদ্ধ করা উচিত: খাদ্যমন্ত্রী

বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতি নিষিদ্ধ করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনি বলেন, যারা আগুন-সন্ত্রাস করে, হাসপাতালে আগুন দেয়, অ্যাম্বুলেন্স পুড়িয়ে দেয়, তাদের এদেশে রাজনীতি করার অধিকার নেই।

বুধবার (৮ নভেম্বর) দুপুরে নওগাঁর সাপাহারে দিঘীরহাট কলেজ মাঠ প্রাঙ্গণে গোয়ালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্তমান সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতাভুক্ত জনগণের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এই মন্তব্য করেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, যে দল (বিএনপি) আগুন সন্ত্রাস করে, হাসপাতালে আগুন দেয়, অ্যাম্বুলেন্স পুড়িয়ে দেয়, তাদের এদেশে রাজনীতি করার অধিকার নেই। এদেরকে রুখতে হবে। ভোট যারা বানচাল করতে চায় তাদের প্রতিরোধ করতে হবে। আগুন সন্ত্রাস আর বিদেশিদের ওপর ভর করে এদেশে রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসা যাবে না। বিএনপি ভোটে আসতে চায় না কারণ তাদের কোনো অর্জন নেই।

সাধন চন্দ্র মজমুদার বলেন, বিএনপির আমলে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর কোনো কর্মসূচি ছিল না। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে চালু হওয়া কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করে দিয়েছিল তারা। শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে আবারও সেই কমিউনিটি ক্লিনিক চালু করেছেন। গরীব মানুষ কমিউনিটি ক্লিনিকে সরকার ২৮ ধরনের ওষুধ বিনামূল্যে পাচ্ছে। গৃহহীনদের গৃহ নির্মাণ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মাদের মোবাইলে সন্তানদের উপবৃত্তির টাকা, গর্ভবতী নারীদের ভাতা, বয়স্ক ও বিধবাদেরও ভাতা দেন তিনি। এসব কারণে সমাজে নারীদের অবস্থানের উন্নয়ন হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আশ্বিন মাসে উত্তরাঞ্চলে মঙ্গা হতো। মানুষ কষ্ট পেত। এখন মঙ্গা নেই। সোনালি ফসলে ভরে উঠেছে কৃষকের মাঠ। আমাদের খাবারের অভাব নাই। মাটির ঘরের জায়গায় এখন পাকা ঘরে আছে মানুষ।

অর্থসূচক/এমএস

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.